Facebook Google Plus Twiter YouTube
   
স্বাধীনতার ৭৫তম বর্ষে নতুন ভারতের জন্য রনকৌশল প্রকাশ করেছে নীতি আয়োগ
Burue Report, 21/12/2018, New Delhi

 নীতি আয়োগ, আজ নতুন ভারতের জন্য সার্বিক জাতীয় কৌশল প্রকাশ করেছে। এতে ২০২২-২৩ বর্ষ পর্যন্ত সুস্পষ্ট লক্ষ নির্ধারিত হয়েছে। এই নথীতে ৪১টি ক্ষেত্রের জন্য বিস্তারিতভাবে কি কাজ হয়েছে  তার উল্লেখ রয়েছে। কোন ধরণের প্রতিবন্ধকতার জন্য কাজ করা যায়নি এবং নির্ধারিত লক্ষপূরণে কিভাবে এগোনো দরকার, তার একটি সুস্পষ্ট রূপরেখার প্রস্তাব করা হয়েছে।
    আজ নতুন দিল্লীতে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী শ্রী অরুন জেটলি, নীতি আয়োগের ভাইস-চেয়ারম্যান ডঃ রাজীব কুমার, সি.ই.ও অমিতাভ কান্ত, সদস্য ডঃ রমেশ চাঁদ এবং ডঃ ভি.কে সারস্বতের উপস্হিতিতে এই নথীটি প্রকাশ করেন।
    ২০২২ সালের মধ্যে নতুন ভারত গঠনের যে উদাত্ত আহ্বান প্রধানমন্ত্রী রেখেছেন, সেখান থেকে অনুপ্রেরণা এবং নির্দেশিকা নিয়ে, নতুন ভারতের জন্য রনকৌশল নির্ধারনের কাজ নীতি আয়োগ গত বছর শুরু করেছিল।
    প্রধানমন্ত্রী এই নথীটির মুখবন্ধে বলেছেন- নীতি আয়োগ উদ্ভাবন, প্রযুক্তি উদ্যোগ ও সুদক্ষ পরিচালন কৌশলকে একত্রিত করে নীতি নির্ধারণ ও তা রূপায়ণের কথা বলেছে। নথীটি নিয়ে আলোচনা ও বিতর্কের সৃষ্টি হলে মানুষের মতামত আহ্বান করা হবে। এর মধ্য দিয়ে আমাদের নীতির অভিমুখটির সংস্কার ঘটবে। প্রধানমন্ত্রী বলেছেন- জনসাধারণের অংশগ্রহণ ছাড়া একটি দেশের অর্থনৈতিক রূপান্তর সম্ভব নয়। তাই উন্নয়নকে জন-আন্দোলনের রূপ দেওয়ার কথা তিনি বলেছেন।
    নথীটি প্রণয়নের জন্য নীতি-আয়োগ অংশগ্রহণমূলক দৃষ্টিভঙ্গিতে ব্যবসায়িক ক্ষেত্র শিক্ষা-গবেষনা ক্ষেত্র, বিজ্ঞানী ও সরকারী কর্মকর্তাদের সঙ্গে গভীরভাবে আলোচনা করে কাজ করেছে। এর পরেও নীতি আয়োগের ভাইস চেয়ারম্যানের স্তরে, বিজ্ঞানী, উদ্ভাবক, কৃষক, নাগরিক সমাজ সংগঠন, চিন্তা গোষ্ঠী, শ্রমজীবি সংগঠন এবং শিল্পসংস্হার প্রতিনিধিদের সঙ্গে বিস্তারিত আলাপ-আলোচনা করা হয়েছে। প্রত্যেকটি অধ্যায়ের খসড়া প্রণয়নের সময় কেন্দ্রীয় মন্ত্রকগুলির কাছ থেকে তথ্য, প্রস্তাব ও মন্তব্য জানতে চাওয়া হয়েছে। এছাড়া প্রত্যেক রাজ্য ও কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের কাছেও খসড়া নথীর বিষয়ে মূল্যবান মতামত পাওয়া গেছে এবং তা নথীতে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। সরকারী পর্যায়ে কেন্দ্র, রাজ্য ও জেলাস্তরে সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রের ৮০০ জনের মতামত ছাড়াও, বাইরে থেকেও ৫৫০ জনের মতামতও এই নথী প্রস্তুত করতে কাজে লাগানো হয়েছে।
    নথীটির মূল সুর হচ্ছে, ২০২২ সালের মধ্যে নতুন ভারত গঠনের লক্ষ অর্জন এবং ২০৩০ সালের মধ্যে ভারতকে পাঁচ লক্ষ কোটি ডলারের এক অর্থনীতি হয়ে ওঠার দিকে এগিয়ে যাওয়া।
    নথীটির চারটি বিভাগে ৪১টি অধ্যায় রয়েছে। এগুলি হল চালিকাশক্তি, পরিকাঠামো, অন্তর্ভুক্তি এবং সুপ্রশাসন বিষয়ক। এই অধ্যায়গুলিতে সব ক্ষেত্রগুলির কাজের অগ্রগতি ও বাকি কাজ বিষয়ে বিস্তারিত জানানো হয়েছে। নথীটি http://niti.gov.in/the-strategy-for-new-india    থেকে দেখা যাবে।

 
Accessibility | Copyright | Disclaimer | Hyperlinking | Privacy | Terms and Conditions | Feedback | E-paper | Citizen Service
 
© aajkeronlinekagaj, Agartala 799 001, Tripura, INDIA.