Facebook Google Plus Twiter YouTube
   
প্রধানমন্ত্রী জাতির উদ্দেশে বগিবিল সেতু উৎসর্গ করলেন; প্রথম যাত্রীবাহী ট্রেনের যাত্রা সূচনা হল
Burue Report, 25/12/2018, New Delhi

প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী মঙ্গলবার আসামে বগিবিল সেতু জাতির উদ্দেশে উৎসর্গ করেন। রাজ্যের ডিব্রুগড় ও ধেমাজি জেলার মধ্যে ব্রহ্মপুত্র নদের ওপর নির্মিত এই সেতুটির দেশের স্বার্থে বিশেষ অর্থনৈতিক ও কৌশলগত গুরুত্ব রয়েছে। ব্রহ্মপুত্রের উত্তর তীরে অবস্থিত কারেঙ্গ চাপোরি’তে এক বিশাল জনসভায় প্রধানমন্ত্রী ঐ সেতু দিয়ে প্রথম যাত্রীবাহী ট্রেনটির যাত্রা সূচনাও করেন।
এই উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী সদ্য প্রয়াত জনপ্রিয় অসমীয় কন্ঠশিল্পী দীপালি বড়ঠাকুরের স্মরণে  তাঁকে শ্রদ্ধা জানান। এই রাজ্য এবং দেশের জন্য বিভিন্ন ক্ষেত্রে গৌরব ও সাফল্যের অধিকারী অন্যান্য বহু বিশিষ্ট ও ঐতিহাসিক ব্যক্তিত্বদেরকেও তিনি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। বড়দিন উপলক্ষে তিনি জনগণকে শুভেচ্ছা জানান। প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী শ্রী অটল বিহারী বাজপেয়ীকে তাঁর জন্মবার্ষিকীতে স্মরণ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আজকের দিনটি ‘সুশাসন’ দিবস হিসাবেও উদযাপিত হয়ে থাকে।
প্রধানমন্ত্রী বিগত সাড়ে চার বছরে কেন্দ্রীয় সরকারের ‘সুশাসন’ নীতি অনুসরণের কথাও উল্লেখ করেন। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ঐতিহাসিক বগিবিল রেল তথা সড়ক সেতুটি ‘সুশাসন’ নীতি অনুসরণেরই ইঙ্গিত বহন করে। কারিগরি ও প্রযুক্তিগত দিক থেকে বিস্ময়কর এই সেতুটির ব্যাপক কৌশলগত গুরুত্ব রয়েছে। এই সেতুটি নির্মিত হওয়ার ফলে আসাম ও অরুণাচল প্রদেশের মধ্যে দূরত্ব বহুলাংশে হ্রাস পেয়েছে। শুধু তাই নয়, এই সেতুটি সংশ্লিষ্ট অঞ্চলের মানুষের জীবনযাত্রাকে অনেক সহজ করে তুলেছে বলেও তিনি অভিমত প্রকাশ করেন। শ্রী মোদী বলেন, এই অঞ্চলের কয়েক প্রজন্মের মানুষের কাছে এই সেতুটি স্বপ্নের মতো ছিল, যা আজ বাস্তবায়িত হ’ল। ডিব্রুগড় সমগ্র এই অঞ্চলের মানুষের কাছে স্বাস্থ্য পরিচর্যা, শিক্ষা এবং বাণিজ্যিক দিক থেকে এক গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্র। ব্রহ্মপুত্র নদের উত্তর তীরে বসবাসকারী মানুষ এই সেতুটির ফলে আরও সহজে ডিব্রুগড়ে যাতায়াত করতে পারবে।
সেতু নির্মাণে যুক্ত সংশ্লিষ্ট সকলের ভূমিকারও প্রশংসা করেন প্রধানমন্ত্রী।
২০১৭-র মে মাসে এই রাজ্যের সাদিয়া-তে ভূপেন হাজারিকা নামাঙ্কিত দেশের দীর্ঘতম সড়ক সেতুটি জাতির উদ্দেশে উৎসর্গের কথাও প্রধানমন্ত্রী স্মরণ করেন।
বিগত ছয় – সাত দশকে আসামে কেবলমাত্র তিনটি সেতু নির্মাণের কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী জানান, বিগত সাড়ে চার বছরেই রাজ্যে আরও তিনটি সেতুর নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে। অন্য ৫টি সেতু নির্মাণের কাজ চলছে। তিনি বলেন, ব্রহ্মপুত্র নদের উত্তর ও দক্ষিণ পাড়ের মধ্যে যোগাযোগ বৃদ্ধি ‘সুশাসন’ – এরই ইঙ্গিত বহন করে। উন্নয়নের এই গতি উত্তর – পূর্বাঞ্চলকে বদলে দেবে বলে তিনি অভিমত প্রকাশ করেন।
প্রধানমন্ত্রী কেন্দ্রীয় সরকারের ‘পরিবহণের মাধ্যমে পরিবর্তনের’ পরিকল্পনার কথা উল্লেখ করেন। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, দেশে আজ দ্রুতগতিতে পরিকাঠামোর বিকাশ হচ্ছে।
বকেয়া প্রকল্পগুলির কাজ সম্পূর্ণ করতে আসাম সরকারের প্রয়াসের প্রশংসা করে প্রধানমন্ত্রী জানান, বিগত সাড়ে চার বছরে রাজ্যের প্রায় ৭০০ কিলোমিটার জাতীয় মহাসড়কের কাজ শেষ হয়েছে। উত্তর – পূর্বাঞ্চলে যোগাযোগ ব্যবস্থার সঙ্গে যুক্ত একাধিক কর্মসূচির কথাও তিনি উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, শক্তিশালী এবং প্রগতিশীল পূর্ব ভারত প্রগতিশীল ও উদীয়মান ভারতের জন্য এক গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার। একাধিক পরিকাঠামোগত প্রকল্পের পাশাপাশি, প্রধানমন্ত্রী উজ্জ্বলা যোজনা, স্বচ্ছ ভারত অভিযান প্রভৃতি উদ্যোগের কথাও উল্লেখ করে জানান, আসামে এই উদ্যোগগুলিতে দ্রুত অগ্রগতি ঘটেছে।
প্রধানমন্ত্রী বলেন, বর্তমানে দেশের দূরদূরান্তে বসবাসকারী যুবকরাও আন্তর্জাতিক মঞ্চে ভারতের নাম উজ্জ্বল করছে এবং সকলকে গর্বিত করছে। আসামের প্রতিভাবান অ্যাথলিট হিমা দাসের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, যুব সম্প্রদায় এখন নতুন ভারতের আত্মপ্রত্যয়ের প্রতীক হয়ে উঠছেন।
ভারতের ভবিষ্যৎ চাহিদার বিষয়গুলিকে মাথায় রেখে প্রয়োজনীয় পরিকাঠামো নির্মাণে সরকার সর্বাত্মক প্রয়াস চালাচ্ছে বলেও প্রধানমন্ত্রী জানান।

 
Accessibility | Copyright | Disclaimer | Hyperlinking | Privacy | Terms and Conditions | Feedback | E-paper | Citizen Service
 
© aajkeronlinekagaj, Agartala 799 001, Tripura, INDIA.