Facebook Google Plus Twiter YouTube
   
রেগায় কাজ দেওয়া হয়েছে দুই কোটি শ্রমদিবসের, আরও এক কোটি শ্রমদিবসের কাজ চেয়ে কেন্দ্রকে প্রস্তাব পাঠালো রাজ্য, ৩০৬.১৩ কোটি টাকা মঞ্জুর
By Our Correspondent, 04/01/2019, Agartala
 

মহাত্মা গান্ধি ন্যাশনাল রুরাল এমপ্লয়মেন্ট গ্যারান্টি অ্যাক্ট তথা এমজিএনরেগায় রাজ্যে চলতি অর্থবছরে প্রায় দুই কোটি শ্রম দিবসের কাজ দেওয়া হয়েছে৷ ফলে কার্ডধারীরা গড়ে কাজ পেয়েছেন ৩৪ দিনের৷ এই বছরেই যাতে আরও এক কোটি শ্রমদিবসের কাজ দেওয়া হয় তারজন্য কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে একটি প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন গ্রামোন্নয়ন দপ্তরের মন্ত্রী যীষ্ণু দেববর্মণ৷


গ্রামেগঞ্জে কাজ নেই, খাদ্য নেই বলে বিরোধী সিপিএম নেতৃত্ব কয়েকমাস আগে অভিযোগ তুলেছিল৷ এখনো কোথাও কোথাও কাজ দেওয়া হচ্ছে না বলে অভিযোগ তুলছে৷ এ ব্যাপারে দপ্তরের মন্ত্রী যীষ্ণু দেববর্মণ জানান- কাজের জন্য কিংবা পেমেন্টের জন্য রাজ্যের কোথাও কোনো আন্দোলন কিংবা ঘেরাওয়ের মত ঘটনা এখন পর্যন্ত ঘটেনি৷ অথচ বামফ্রন্ট সরকারের আমলে এমনটা প্রায়শঃই দেখা যেত৷


একটি তথ্য দিতে গিয়ে শ্রী দেববর্মণ জানান- ১ এপ্রিল থেকে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত নয় মাসে রাজ্যে রেগার কাজ হয়েছে ১ কোটি ৭৮ লক্ষ ১৫ হাজার শ্রমদিবসের৷ গত সপ্তাহের এমআইএস রিপোর্ট অনুযায়ী এই সময়ের মধ্যে ৯.৮৮ লক্ষ শ্রমিক কাজ পেয়েছেন৷ প্রত্যেকে গড়ে ১৬৭.২৬ টাকা করে মজুরী পেয়েছেন ৷ এরমধ্যে অধিকাংশ কাজ হয়েছে এডিসি এলাকায়৷

একটি তথ্য দিতে গিয়ে তিনি জানান- এই সময়ের মধ্যে সম্পূর্ণ এডিসি এলাকার অন্তর্ভূক্ত ব্লকগুলিতে কাজের দাবি ছিল ১,৮১,৯০২ পরিবারের৷ এরমধ্যে ১,৭৬,৪১৪টি পরিবারকে মোট কাজ দেওয়া হয়েছে ৭৪ লক্ষ ২২ হাজার ৪৭৯ দিনের৷ অংশত এডিসি ব্লকগুলিতে কাজের দাবি ছিল ২,০০,৯৯৪ পরিবারের৷ তাদের মধ্যে কাজ দেওয়া হয়েছে ৬৪,৭৪,৪৫৬ দিনের৷এডিসি এলাকার বাইরে কাজের দাবি ছিল ১,৬৭,২৪৪টি পরিবারের৷ তাদের মধ্যে কাজ দেওয়া হয়েছে ৩৯ লক্ষ ১৮ হাজার ৫৬৭ শ্রমদিবসের৷এমজিএনরেগায় প্রায় ৭৮ শতাংশ কাজই উপজাতি এলাকায় করা হয়েছে বলে জানান তিনি৷

জনসংখ্যার বিচারে রাজ্যে ৩১.৮ শতাংশ জনজাতি থাকলেও রেগার কাজ পেয়েছেন ৫২.৫২ শতাংশ মানুষ৷ এই সময়ের মধ্যে শ্রমিকরা প্রতিদিন গড়ে ১৬৭ টাকা ২৬ পয়সা করে পেয়েছেন৷
গ্রামোন্নয়নমন্ত্রী যীষ্ণু দেববর্মণ জানান- ভারত সরকার রেগা খাতে এখন পর্যন্ত রাজ্যকে ৩০৬.১৩ কোটি টাকা মঞ্জুর করেছে৷ এরমধ্যে ৩০৫.৬৫ কোটি টাকা বেতন খাতে ব্যয় করা হয়েছে৷ রাজ্য থেকে এখন পর্যন্ত ১,০৪,৮১২টি এফটিও জেনারেট করা হয়েছে৷ তবে ১১,৭৮৭টি এফটিও এখনো পেমেন্ট করা হয়নি সাকূল্যে যে অর্থের পরিমাণ হলো ৩৬ কোটি ১২ লক্ষ৷

বিষয়টি কেন্দ্রীয় মন্ত্রকের গোচরে নেওয়া হয়েছে বলে জানান তিনি৷ মন্ত্রীর মতে, রেগা খাতে যে বাজেট বরাদ্দ ধরা হয়েছিল এরমধ্যে ৮৯ শতাংশ অর্থই ব্যয় হয়ে গেছে এই সময়ের মধ্যে৷ ফলে গ্রামোন্নয়নমন্ত্রকের কাছে আরও এক কোটি শ্রমদিবস চেয়ে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে৷ যদিও রেগার কাজ করানো নিয়ে অনেক সমস্যার কথা এদিন জানালেন গ্রামোন্নয়নমন্ত্রী৷
তিনি বলেন- বর্তমান সরকার আউটপুট তথা উৎপাদন নির্ভর কাজ করতে চাইছে৷ এরজন্য বৃক্ষরোপনের মত আরও অনেক নতুন বিষয়ও যুক্ত করা হয়েছে৷ কিন্তু যে জায়গাকে কেন্দ্র করেই পরিকল্পনা নেওয়া হচ্ছে, দিল্লি থেকে ফোন করে বলছে এখানে তো পুকুর রয়েছে৷ পুকুরে কি করে বৃক্ষরোপন সম্ভব? শ্রী দেববর্মণ বলেন- এমন কয়েকটা স্থান পরিদর্শন করে দেখেছি এখানে এখনো জমিই পড়ে রয়েছে৷ অথচ জিও ট্যাগিংয়ে ধরা পড়ছে পুকুর খনন করা হয়েছে৷ পূর্বতন সরকারের আমলে এভাবেই কাজ না করেও জিও ট্যাগিং দেখিয়ে বিল আদায় করা হয়েছে৷ ফলে এই স্থানে এখন নতুন কোনো প্রকল্পের কাজ করানো যাচ্ছে না৷

 
Accessibility | Copyright | Disclaimer | Hyperlinking | Privacy | Terms and Conditions | Feedback | E-paper | Citizen Service
 
© aajkeronlinekagaj, Agartala 799 001, Tripura, INDIA.