Facebook Google Plus Twiter YouTube
   
সাড়াজাগানো পৃষ্টপ্রমুখ সম্মেলন বিজেপির, আইপিএফটি, মন্ত্রিসভা ও কোর কমিটির সাথে পৃথক বৈঠক অমিত শাহ’র
By Our Correspondent, 05/01/2019, Agartala
 

আইপিএফটি’র সাথে আলোচনা করেই লোকসভার দুই আসনের প্রার্থীর নাম চূড়ান্ত করা হবে৷ একদিনের রাজ্য সফরে এসে সাংবাদিক সম্মেলনে এমনটাই জানালেন বিজেপি’র সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ্৷ এ নিয়ে আইপিএফটি নেতৃত্বের সাথে একটি বৈঠকও করেছেন তিনি৷ যদিও বৈঠকে এ নিয়ে কি আলোচনা হয়েছে তা জানা যায়নি৷ তবে লোকসভার আগে এদিন সাড়াজাগানো পৃষ্টপ্রমুখ সম্মেলন করলো বিজেপি। যেখানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে কংগ্রেসকে একহাত নিয়েছেন অমিত শাহ।
শনিবার বিকেলে রাজ্য অতিথিশালায় আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে বিজেপি’র সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ বর্তমান রাজ্য সরকারের গত নয় মাসের কাজকর্মেরও ভূয়সী প্রশংসা করেছেন৷ কেন্দ্র এবং রাজ্যে একই দলের সরকারের সুবিধার কথা উল্লেখ করতে গিয়ে শ্রী শাহ্ বলেন- বিপ্লব কুমার দেব ও যীষ্ণু দেববর্মনদের নেতৃত্বে সরকার এই সময়ের মধ্যে এফসিআইয়ের মাধ্যমে ধান ক্রয় করে রাজ্যের কৃষকদের আয় দ্বিগুণ করতে সক্ষম হয়েছেন৷ প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী এই সময়ের মধ্যে রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের জন্য সপ্তম বেতন কমিশন কার্যকর করা হয়েছে৷ প্রশাসনিক ভুলের কারণে ১০,৩২৩ শিক্ষকদের জীবনে যে সংকট ঘনিয়ে এসেছিল তাদের পাশে থেকেছে, ৬২ হাজারেরও বেশি ভূয়ো রেশন কার্ড চিহ্ণিত করে বৈধ নাগরিকদের জন্য সামাজিক পেনশন ব্যবস্থাকে সমৃদ্ধ করার চেষ্টা হচ্ছে৷ অমিত শাহ বলেন, ত্রিপুরাকে নেশামুক্ত করে তুলতে বর্তমান সরকার বড় ভূমিকা নিয়েছে৷ আইন-শৃঙ্খলার উন্নতি হওয়ায় অপরাধীরা রাজ্য ছাড়তে বাধ্য হয়েছে৷ রাজনৈতিক হিংসামুক্ত হয়েছে ত্রিপুরা৷ ফলে যে কোনো রাজনৈতিক দল সভা সমাবেশ করতে পারছেন মুক্তভাবে৷
নরেন্দ্র মোদি সরকারের একাধিক উন্নয়নমূলক কর্মসূচীরও ব্যাখ্যা দেন তিনি৷ উত্তর পূর্বাঞ্চলের উন্নয়নের জন্য মোদি সরকার ২৫ হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ করেছে, যা এর আগে কোনো সরকার করেনি৷ বাংলাদেশের সাথে ত্রিপুরার দীর্ঘ রেল পথের সম্পর্ক স্থাপিত হযেছে৷ আগরতলার উড়ালপুল নির্মাণ, বিমানবন্দরের উন্নয়ন হচ্ছে মোদির নেতৃত্বে৷ কেন্দ্রীয় সরকারের একাধিক পরিকল্পনার কথা উল্লেখ করে শ্রী শাহ বলেন- ত্রিপুরার ১২৯টি প্রকল্প কেন্দ্রীয় সরকার প্রাধান্য দিচ্ছে৷ বিভিন্ন প্রকল্পে ১৩শ কোটি টাকা বিবেচনাধীন রয়েছে৷
আগামী এপ্রিল অথবা মে মাসে দেশে সাধারণ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে৷ একথা উল্লেখ করে বিজেপি সভাপতি অমিত শাহ্ বলেন- নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বে দল যখন দেশে ক্ষমতায় আসে তখন মাত্র ৬টি রাজ্যে বিজেপি ক্ষমতায় ছিল৷ আর এখন ১৬টি রাজ্যে ক্ষমতায় রয়েছে৷ আগামী নির্বাচনে আরও বেশি আসন এবং জনসমর্থন নিয়ে ক্ষমতায় আসবে৷ উত্তর পূর্বাঞ্চল থেকে ২১টি’রও বেশি আসনে বিজেপি প্রার্থীরা বিজয়ী হবেন বলে জানান তিনি৷ শাহ্ বলেন, উত্তর পূর্বাঞ্চল এখন কংগ্রেস মুক্ত৷ এখানে হয় বিজেপি সরকার নয় নেডার অন্তর্ভূক্ত রাজনৈতিক দলগুলির সরকার রয়েছে৷
কংগ্রেসের নেতৃত্বে দেশে যে মহাজোট গঠনের প্রয়াস চলছে তাকে কটাক্ষ করতে গিয়ে বলেন- কংগ্রেসের নেতৃত্বে “মজবুর’ সরকার নয়, দেশের মানুষ চাইছেন একটি “মজবুত’ সরকার গঠন করতে৷ তিনি বলেন, এই জোটের কোনো নেতা নেই, নীতি নেই৷ শুধু সুবিধা আদায়ের জন্য তারা এক জায়গায় আসার চেষ্টা করছেন৷
রাজ্যে আইপিএফটি’র সাথে জোটে রয়েছে বিজেপি৷ লোকসভা নির্বাচনের দুটি আসনে প্রার্থী দেওয়া নিয়ে দলের অবস্থান জানতে চাইলে তিনি বলেন- আইপিএফটি’র সাথে আলোচনা করে সর্বসম্মতিক্রমেই আসন সবকিছু করা হবে৷ তবে রাজ্যের দুটি আসনেই বিজেপি প্রার্থী দেবে, না কি একটি আসন জোটসঙ্গীর জন্য ছেড়ে দেওয়া হবে সে ব্যাপারে কোনো ইঙ্গিত দিতে চাননি তিনি৷ তবে সাংবাদিক সম্মেলনের পর পরই অমিত শাহ রাজ্য অতিথিশালায় আইপিএফটি নেতাদের সাথে এই ইস্যুতে আলোচনা করেছেন বলে জানা গেছে৷ আইপিএফটি’র তরফে মোট ১২জন প্রতিনিধি সেখানে উপস্থিত ছিলেন৷ যদিও এই বৈঠকে কি আলোচন হয়েছে সে ব্যাপারে কোনকিছু জানানো হয়নি৷ তবে পূর্ব ত্রিপুরা লোকসভা আসনটি যাতে অবশ্যই আইপিএফটিকে দেওয়া হয় তারজন্য এই দলের তরফে একটি দাবি পেশ করা হয়েছে বলে খবর৷ আইপিএফটি’র সাথে বৈঠকের পর অমিত শাহ্ পৃথক দুটি বৈঠক করেন যথাক্রমে রাজ্য মন্ত্রীসভার সদস্যদের সাথে ও দলের কোর কমিটির সাথে৷ মূলতঃ লোকসভা নির্বাচনের রণকৌশল নিয়েই সব কয়টি আলোচনায় গুরুত্ব পায়৷ এছাড়া, রাজ্য সরকারের কাজকর্মের বিষয়েও আলোচনা হয়েছে৷ উল্লেখ্য, সম্মেলন ও বৈঠক সেড়ে অমিত শাহ মুখ্যমন্ত্রীর বাসভবনে নৈশভোজ সেড়ে রাতেই দিল্লি ফিরে গেছেন৷
শনিবার  সকালে বিশেষ বিমানে অমিত শাহ আগরতলায় আসেন। বিমানবন্দরে তাকে অভ্যর্থনা জানান মুখ্যমন্ত্রী, উপ মুখ্যমন্ত্রী সহ দলীয় নেতৃত্ব। এখান থেকে যান উদয়পুরে। ত্রিপুরা সুন্দরী মন্দিরে পূজা দিয়ে চলে আসেন আগরতলায়। এখানে আস্তাবল ময়দানে পৃষ্টপ্রমুখ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন।  এই উপলক্ষে মাঠে প্রচুর সংখ্যক কর্মীর উপস্থিতি বিজেপি নেতৃত্বকে লোকসভার আগে বড় সম্ভাবনাকেই স্পষ্ঠ করে দিয়েছে বলে মনে করছেন তথ্যাভিজ্ঞমহল। দিল্লিতে আগামী নির্বাচন আগের থেকেও বেশি আসন নিয়ে দল ক্ষমতায় ফিরবে বলে জানিয়েছেন অমিত শাহ।

 
Accessibility | Copyright | Disclaimer | Hyperlinking | Privacy | Terms and Conditions | Feedback | E-paper | Citizen Service
 
© aajkeronlinekagaj, Agartala 799 001, Tripura, INDIA.