Facebook Google Plus Twiter YouTube
   
গ্যাংটকের জিরো পয়েন্টে উদ্বোধন হলো স্বদেশ দর্শন প্রকল্পের
PIB, 30/01/2019, Ganktok

জিরো পয়েন্টে স্বদেশ দর্শন প্রকল্পের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করলেন ভারত সরকারের (স্বাধীন দায়িত্বপ্রাপ্ত), পর্যটন প্রতিমন্ত্রী শ্রী কে জে আলফোন্স৷ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তাঁর সাথে উপস্থিত ছিলেন সিকিমের পর্যটন ও অসামরিক বিমান পরিবহনমন্ত্রী শ্রী উগেন, মানব সম্পদ উন্নয়ন বিভাগের মন্ত্রী টি গায়েতস্ব, মুখ্য প্রশাসক শ্রী আর বি সুব্বা, মুখ্যসচিব এ কে শ্রীবাস্তব, শক্তি সিং চৌধুরী, মেয়র (জিএমসি ), শ্রীমতি লাস্যদোমা ভূটিয়া, ডেপুটি মেয়র (জিএমসি) এবংপর্যটন ও অসামরিক বিমান পরিবহণ দপ্তরের অন্যনান্য আধিকারিক ও প্রকৌশলীরা৷

রাষ্ট্রমন্ত্রী (আইসি)র সঙ্গে উপস্থিত ছিলেন সহকারী অধিকর্তা, পর্যটন মন্ত্রণালয়, শ্রীমতি ভারতী শর্মা ও আঞ্চলিক অধিকর্তা( উত্তর-পূর্বাঞ্চল) শ্রী এসএস দেববর্মণ৷

রাজ্যের পর্যটন সচিব, টিটি ভুটিয়া অনুষ্ঠানে স্বাগত ভাষণ রাখেন এবং সিকিমের পর্যটনের জন্ম ও উন্নয়নের চিত্র তুলে ধরেন৷ পরিকাঠামোগত উন্নয়ন থেকে শুরু করে গ্রামীণ পর্যটন ও তীর্থ পর্যটন সম্বন্ধে বলতে গিয়ে তিনি জানান, রাজ্যের স্থিতিশীলতা এবং রাজ্য সরকারের অভিবাবকত্ব ও সহযোগিতার কারণে এই ক্ষেত্রটির দ্রুততার সঙ্গে উন্নয়ন হয়েছে৷তিনি জানান, এসডিপি-১”র জন্য ৯৫.৩২ কোটি টাকা মঞ্জুর করা হয়েছে, যার অধীনে পর্যটন ব্যাখ্যা কেন্দ্র তথা হস্তশিল্প ও হ্যান্ডলুম সরাসরি সম্প্রচারের উদ্বোধন করা হয়েছে এদিন৷ এসডিপি-২ র কাজ চলছে এবং তার জন্য ৯৮.০৬ কোটি টাকা মঞ্জুর করা হয়েছে৷ এছাড়া, এসডিপি-৩ এর জন্য ৯৯.৮৮ কোটি টাকার প্রস্তাব নেওয়া হয়েছে৷

শ্রী কে জে আলফোনস সমাবেশে বক্তব্য রাখতে গিয়ে বলেন, এই রাজ্য সফরে আসতে পেরে তিনি অভিভূত৷ তিনি সিকিমের উন্নয়ন ও বৃদ্ধির ,বিশেষত তার অতিথিপরায়ণতা ও সুরক্ষার ভূয়সী প্রশংসা করেন৷ রাজ্য সরকারের প্রচেষ্টা ও কাজের  প্রশংসা করে পরিচ্ছনতা, স্বাস্থ্য, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি ও দক্ষ প্রশাসন বজায় রাখার জন্য রাজ্য সরকারকে অভিনন্দন জানান৷  সিকিমের গ্রামীণ এলাকার প্রশংসনীয় বৃদ্ধির বিষয়েও তিনি কথা বলেন এবং জানান, রাজ্যটির প্রতিটি কোনায় পর্যটনস্থলের উৎকৃষ্ট নিদর্শন রয়েছে৷ যার ফলে এই রাজ্যের গন্তব্য সর্বত্র ছড়িয়ে পড়েছে এবং বাস্তব বিকাশ ঘটছে৷ একটা পারিবারিক পরিমন্ডল ও সুস্থ পর্যটনের উদাহরণ দিয়ে পুনরায় ট্র্যাকিং ট্রেনের উন্নয়নকে উৎসাহিত করে তিনি বলেন, এর মাধ্যমে মানুষ যতটা সম্ভব প্রকৃতির কাছাকাছি আসতে পারবে৷ তিনি বন ও পর্যটন ক্ষেত্রকে প্রকৃতির সুরক্ষার জন্য একত্রে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন, কিন্তু তার সঙ্গে সঙ্গে সেইসব এলাকার অধিবাসীদের তাদের মালিকানার অধিকার দেবার কথাও বলেছেন৷

তিনি জনগণকে স্মরণ করিয়ে দেন আতিথেয়তাকে পুঁজি করা অত্যন্ত অপরিহার্য এবং তা যথেষ্ট সম্ভাবনাময় যা অপরিমেয়৷ চাকুরি ক্ষেত্রে ন্যায়ের উপর গুরুত্ব ব্যাখ্যা করে তিনি বলেন, আতিথেয়তা চাকুরির সুযোগ সম্প্রসারিত করে, যার ফলে উন্নয়ন ও  বৃদ্ধি অবশ্যাম্ভাবি৷তিনি বেসরকারী ক্ষেত্র ও অংশগ্রহণকারীদের ভূমিকার উপর গুরুত্বারোপ করে বলেন, “এটা কোনো সরকারের কাজ নয় যে ব্যবসা করার জন্য তা করবে৷ তিনি সার্বিক উন্নয়নের প্রশ্নে সার্বজনীন দর্শনের তত্তের কথা উল্লেখ করে বলেন, পর্যটনকে রূপান্তরমূলক হতে হবে৷

নতুন মাল্টিস্পেশালিটি হাসপাতাল স্থাপনের মতো অসাধারণ পদক্ষেপ গ্রহণের মাধ্যমে রাজ্যের অগ্রগতি সাধনের জন্য তিনি রাজ্য সরকারের প্রশংসা করে বক্তব্য শেষ করেন৷ সিকিমের নিরাপত্তা, উন্নয়ন ও স্থিশিলীতার কথা উল্লেখ করে বলেন, “ উত্তর-পূর্বাঞ্চলের মধ্যে সিকিম সেরা রাজ্য৷’’ তিনি দপ্তরকে ধন্যবাদ জানান এখানে তাঁকে আমন্ত্রণ জানানোর জন্য এবং সকলকে স্মরণ করিয়ে দেন যে জীবনে অগ্রসর হওয়ার ক্ষেত্রে মর্যাদা হচ্ছে পাথেয়৷ বিশেষত পিছিয়ে পরা শ্রেণীর ক্ষেত্রে প্রতি শ্রদ্ধাশীল এবং আজ্ঞাবহ হতে৷

পর্যটনের বিশেষ সচিব শ্রীমতি নম্রতা থাপা ধন্যবাদসূচক ভাষণ রাখেন এবং  শ্রী কেজি আলফন্সকে তার সময় ও উপস্থিতির জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন৷ সেই সঙ্গে পর্যটন ক্ষেত্রে উন্নয়নের জন্য রাজ্য সরকারের এবং মুখ্যমন্ত্রীর সর্বদা সহযোগিতা ও অভিবাবকত্বের জন্য প্রশংসা করেন৷ তিনি উদ্বোধনী অনুষ্ঠানকে সফল করার ক্ষেত্রে একসঙ্গে আসার জন্য দপ্তরকে ও সকলকে ধন্যবাদ জানান৷

জিরো পয়েন্টে ডাইরেক্টরেট অব হ্যান্ডলুম ও হ্যান্ডিক্র্যাফটস এর অভ্যন্তরে ট্যুরিজম ইন্টারপ্রিটেশন সেন্টার সহ হস্তশিল্প ও হ্যান্ডলুমের সরাসরি প্রদর্শনের আয়োজন করা হয়৷ এটি একটি পাঁচতলা বিশিষ্ট পরিকাঠামো যাতে দুটি ব্লক রয়েছে ৷ ব্লক-এ তে ২১টি স্টল ও ৩টি বেসমেন্ট রয়েছে, ৪৯৩২ বর্গফুট বিশিষ্ট গ্রাউন্ড ফ্লোর এবং ৬৫১টি এলাকার সঙ্গে প্রথম তল৷ ব্লক বি-তে রয়েছে ৭টি স্টল সহ ২টি বেসমেন্ট এবং খোলা ছাদ, যার মাধ্যমে ১০০৫ বর্গফুট ক্ষেত্র আচ্ছাদিত হবে৷ প্রকল্পটি ২০১৬ সালের ২৯মার্চ শুরু হয়েছিল এবং শেষ হয় ২০১৮ সালের ২৪ নভেম্বর৷ প্রকল্পটির জন্য সর্বমোট খরচ হয়েছে ৪৩৯.৪৩ লক্ষ টাকা৷

 
Accessibility | Copyright | Disclaimer | Hyperlinking | Privacy | Terms and Conditions | Feedback | E-paper | Citizen Service
 
© aajkeronlinekagaj, Agartala 799 001, Tripura, INDIA.