Facebook Google Plus Twiter YouTube
   
সিবিআই বনাম পুলিশের সংঘাত কলকাতায়, সিবিআইকে ব্যবহার করার প্রতিবাদে মেট্রো চ্যানেলের সামনে ধরনায় পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়
Burue Report, 03/02/2019, Kolkata
 

নগরপাল রাজীব কুমারের বাড়িতে হানা দেওয়ার চেষ্টায় CBI-এর সঙ্গে পুলিশের টানাপোড়েনের মধ্যেই বেনজির সিদ্ধান্ত নিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রাজীব কুমারের বাড়িতে পুলিশের উচ্চ পদস্থ কর্তাদের সঙ্গে বৈঠকের পর তিনি সাংবাদিকদের সামনে ঘোষণা করেন, নরেন্দ্র মোদীর সরকারকে উত্‍‌খাত করতে এদিন রাত থেকেই তিনি মেট্রো চ্যানেলের সামনে ধরনায় বসবেন। সোমবার রাজ্য বাজেট রয়েছে। ধরনা মঞ্চের পাশেই একটি কাঠামো করে সেখানে মন্ত্রিসভার বৈঠক করবেন বলে তিনি জানিয়েছেন। সেখান থেকেই চালাবেন প্রশাসনিক কাজকর্ম। তাঁর কথায়, 'এদিনের ঘটনা তাঁর দলের নয়। তবে প্রশাসনিক প্রধান হিসেবে সব আধিকারিকের সুরক্ষার দায়িত্ব আমারই। আমার ফোর্সের উপর আঘাত ফেডারেল স্ট্রাকচারের উপর আঘাত। এই ঘটনার বিহীত চাই। এটা আমার সত্যাগ্রহ।'
মমতার অভিযোগ, প্রধানমন্ত্রীর নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল মোদীর নির্দেশ মেনে CBI-কে চালনা করেন। তাঁর কথায়, 'ওরা রাজনৈতিকভাবে আমাদের সঙ্গে পেরে উঠছে না। কালই মোদী সভায় হুমকি দিয়ে গিয়েছিলেন। আমরা যেদিন ব্রিগেডে সভা করি, সেদিনই CBI আধিকারিকদের ডেকে বলা হয়েছিল কুছ তো করো। চম্বলের ডাকাত ও গদ্দারের সর্দারের কথায় এসব হচ্ছে। রাজীব কুমার চিট ফান্ডের সঙ্গে জড়িত, এটা ওরা প্রমাণ করুক। পারলে মানুষের ভোটে বিজেপি সরকার গড়ুক। গায়ের জোরে এটা করা যাবে না।'

ধরনার কথা ঘোষণার পরই গাড়ি নিয়ে সোজা মেট্রো চ্যানেলে চলে যান মুখ্যমন্ত্রী। বসে পড়েন ধরনায়। তাঁর সঙ্গে যোগ দিয়েছেন দলের অন্যান্য নেতারা। নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধে সব শক্তিকে একজোট হওয়ার ডাক দিয়েছেন তিনি। মমতাকে ফোন করে তাঁর সঙ্গে কথা বলেন আহমেদ প্যাটেল ও অখিলেশ যাদব।

কলকাতা পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে, সিবিআই অফিসাররা বলেছিলেন, একটি গোপন অভিযানে তাঁরা গিয়েছেন। তবে যথাযথ কাগজপত্র তাঁরা দেখাতে পারেননি।

 
Accessibility | Copyright | Disclaimer | Hyperlinking | Privacy | Terms and Conditions | Feedback | E-paper | Citizen Service
 
© aajkeronlinekagaj, Agartala 799 001, Tripura, INDIA.