Facebook Google Plus Twiter YouTube
   
প্রধানমন্ত্রীর সফর উপলক্ষে প্রশাসনের ব্যাপক প্রস্তুতি, বিমানবন্দরে উদ্বোধন করবেন মহারাজার আবক্ষ মূর্তি, গর্জি-বিলোনিয়া রেল ও আইআইটি বিল্ডিং
By Our Correspondent, 05/02/2019, Agartala
 

গুয়াহাটিতে শুরু হয়েছে দ্বিতীয় এশিয়ান-ভারত যুব সামিট৷ কেন্দ্রীয় পর্যটন মন্ত্রকের ভারপ্রাপ্ত রাজ্যমন্ত্রী কে জে আলফোনস উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন৷ অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অসমের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোয়াল৷ এ বছরের সামিটের মূল ভাবনা হলো-“ যোগব্যবস্থাঃ সমৃদ্ধির অংশীদারিত্বের উপায়”৷
অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী আলফোনস বলেন, ভারত এবং এশিয়ান দেশগুলির মধ্যে অনেক বিষয়ে ঐক্য রয়েছে৷ তিনি বলেন “বৌদ্ধ দর্শন ও হিন্দু দর্শনের মধ্যে গভীর সম্পৃক্ততা রয়েছে যা এশিয়ান অঞ্চলগুলিকে ঐক্যবদ্ধ রেখেছে৷ এই বন্ধনকে আরো সুদৃঢ় করতে এবং ভাবনাসমূহের মধ্যে বোঝাপড়া গড়ে তুলতে আমাদের একত্রে কাজ করা উচিত৷’
মন্ত্রী বলেন, যুবকরাই ভবিষৎতের বিশ্ব গড়ে তুলবে৷ স্থায়ী শান্তি ও সামগ্রিক উন্নয়নের প্রশ্নে রাজনীতি, অর্থনীতি এবং সামাজিক ক্ষেত্রে যুবকদের আরও অংশগ্রহণের জন্য আহ্বান রাখেন তিনি৷ আধ্যাত্মিক সংযোগের প্রেক্ষাপটে আলোচনা করতে গিয়ে আলফোনস বলেন, যুবকদের মধ্যে সংবেদনশীল ভাবনা রয়েছে যা দেশকে নতুন সমৃদ্ধির অভিমুখে নিয়ে যেতে পারে৷ তিনি বলেন, “পৃথিবী যুবকদের করায়ত্ত’৷ এটাই উৎকৃষ্ট সময় পুরনো দর্শনতত্ত্বকে বাতিল করা৷ আমাদের বিশ্বাস করতে হবে যে সকলকে সংঘবদ্ধ হয়েই কাজ করতে হবে৷’
যুবকদের উৎসাহ দিতে গিয়ে তিনি বলেন, বড় স্বপ্ন দেখুন এবং এই স্বপ্ন পূরণের জন্য কঠোর পরিশ্রম করুন৷ প্রত্যেকে নিজের জন্য স্বপ্ন দেখুন এবং নিজেকে নিজে বলুন আমি ব্যতিক্রম  একটা কিছু করতে যাচ্ছি৷’ হলে উপস্থিত সকল যুবকদের উদ্দেশ্যে তিনি অনুরোধ করেন পাঁচ দিনের এই ভাবনা বিকাশ অনু্ষ্টানের পূর্ণ সদ্ব্যব্যবহার করতে৷ যাতে এখান থেকে ফিরে গিয়ে প্রত্যেকে নিজ নিজ দেশে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজের মাধ্যমে বিশ্বকে বসবাসের জন্য শ্রেষ্ট স্থান হিসাবে গড়ে তুলতে সক্ষম হন৷
বিশ্ব জলবায়ু পরিবর্তনের জন্য কেন্দ্রীয় মন্ত্রী  আলফোনস গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেন এবং পরিবেশের সুরক্ষা ও উন্নতির জন্য যুবকদের কার্যকরি ভূমিকায় গ্রহণের জন্য আহ্বান রাখেন৷ তিনি বলেন, অনেক মানুষ এ ব্যাপারে উদাসীন ভূমিকায় পালন করছেন এবং দায়িত্ব এড়িয়ে যাচ্ছেন৷ যার ফলশ্রুতিতে জ্ঞাত কিংবা অজ্ঞাতসারে এমন সব কাজকর্ম তারা করে যাচ্ছেন যা পরিবেশের জন্য ক্ষতিকারক৷ এই প্রবণতা রোধ করতে যুবকদের স্থায়ী পরিবেশ সুরক্ষার প্রতিনিধি হিসাবে গোটা মানব সভ্যতার মধ্যে ভূমিকায় পালন করতে হবে৷
অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে অসমের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনোয়াল বলেন, দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার দেশগুলির সাথে ভারতের বন্ধুত্ব সাংস্কৃতিক এবং সভ্যতার দৃঢ় ভিত্তির উপর প্রতিষ্ঠিত, যা বিভিন্ন দৃষ্টিকোণ থেকে সাংস্কৃতিক সাদৃশ্যের মধ্যে প্রতীয়মান হয়ে থাকে৷ তিনি বলেন, “আমি বিশ্বাস করি পারস্পরিক বোঝাপড়া ও সংকট মোকাবিলার ক্ষেত্রে ১০টি এশিয়ান দেশের সাথে ভারতের যুবকদের সম্মেলন এই অঞ্চলে একটা নতুন দিগন্ত উন্মোচিত হবে৷ এ প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী সোনোয়াল দক্ষিণ পূর্ব এশিয়ার সাথে ভারতের গুরুত্পূর্ণ সম্পর্ক গড়ে তোলার প্রশ্নে বিমান, সড়ক, জল, রেল ও তথ্য প্রযুক্তি ক্ষেত্রে উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থা গড়ে তোলার উপর জোর দেন৷
আলোচনায় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিদেশ মন্ত্রকের পূবর্বাঞ্চলের দায়িত্বপ্রাপ্ত সচিব মিস বিজয় ঠাকুর সিং, এবং ইন্ডিয়া ফাউন্ডেশনের ডাইরেক্টর অবসরপ্রাপ্ত মেজর জেনারেল ধ্রুব সি কাটোছ৷ ভারত এবং ১০টি এশিয়ান দেশ থেকে ১৫০জনেরও বেশি প্রতিনিধি এই সামিটে যোগ দিয়েছেন৷ ব্রুনেই, কম্বোডিয়া, ইন্দোনেশিয়া, লাও পিডিআর, মালয়েশিয়া, মায়ানমার, ফিলিপিনস, সিঙ্গাপুর, থাইল্যান্ড এবং ভিয়েতনাম থেকে আসা প্রতিনিধিরা ৫ দিনের সামিটে আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সামাজিক-সাংস্কৃতিক মত বিনিময়, পারস্পরিক সহনশীলতা, বহুত্ব ও বৈচিত্রের মূল্য এবং সম্পর্ক সুদৃঢ় করা নিয়ে আলোচনা করবেন৷

 
Accessibility | Copyright | Disclaimer | Hyperlinking | Privacy | Terms and Conditions | Feedback | E-paper | Citizen Service
 
© aajkeronlinekagaj, Agartala 799 001, Tripura, INDIA.