Facebook Google Plus Twiter YouTube
   
১-১০ মে গোয়া সমুদ্র উপকূলে ভারত ও ফ্রান্সের নৌবাহিনীর বরুণ ১৯.১ এর যৌথ মহড়া
PIB, 01/05/2019, New Delhi

১-১০ মে ২০১৯ গোয়া সমুদ্র উপকূলে আয়োজিত হতে চলেছে ইন্দো-ফ্রান্স নৌ-বাহিনী বরুণ ১৯.১ এর প্রথম যৌথ মহড়া৷
১৭ তম এই সংস্করণের প্রথম অংশে ফরাসি নৌবাহিনীর যে সমস্ত মহড়া অন্তর্ভুক্ত থাকছে সেগুলি হলো এফএনএস  চার্লস ডি গল্লে, দুটি বিধ্বংসী এফএনএস ফরবিন এবং এফএনএস প্রোভেনস, ফেনেটস এফএনএস লাতোচে-ট্রেভল, ট্যাঙ্কার এফএনএস মার্নে এবং পারমাণবিক সাবমেরিন। ভারতীয় দিক থেকে মহড়ায় থাকছে বিমান পরিবহনকারী আইএনএস বিক্রমাদিত্য, বিধ্বংসী আইএনএস মু্ম্বাই, টিগ-ক্লাস ফ্রিজ, আইএনএস তর্কশ, শিশুমার-সাবমেরিন, আইএনএস শঙ্কুল, এবং দীপক ক্লাসের ফ্লিট ট্যাঙ্কার, আইএনএস দীপক৷
এই মহড়াটি দুটি পর্যায়ে অনুষ্ঠিত হবে৷ গোয়াতে বন্দর পর্যায়ে পারস্পরিক-পরিদর্শন, পেশাদার মিথস্ক্রিয়া এবং আলোচনা ও ক্রীড়া ইভেন্ট অন্তর্ভুক্ত থাকবে। সামুদ্রিক পর্যায়ে নৌবাহিনীর বিভিন্ন বর্ণময় মহড়া অন্তর্ভুক্ত করা  হবে৷
দ্বিতীয়  অংশে  বরুন ১৯.২, জিবুতিতে মে মাসের শেষ দিকে অনুষ্ঠিত হবে ৷ দ্বিপাক্ষিক নৌ মহড়ার সূচনা হয়েছিল ১৯৮৩ সালে এবং ২০০১  সালে 'ইন্দো-ফরাসি কৌশলগত অংশীদারিত্বের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশকে বরুনা' নামে নামকরণ করা হয়েছিল৷ বছরের পর বছর ধরে সুযোগ ও জটিলতায় বেড়ে ওঠা  এই অনুশীলনটি ভারত মহাসাগর অঞ্চলের ভারত-ফরাসি সহযোগিতার একটি যৌথ কৌশলগত দৃষ্টিভঙ্গি এবং এই সাথে দুই দেশের মধ্যে শক্তিশালী সম্পর্কের উদাহরণ৷ ২০১৮ সালের মার্চ মাসে রাষ্ট্রপতি ইমানুয়েল ম্যাক্রন এবং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি কর্তৃক যা স্বাক্ষরিত হয়েছে৷ বরুণার মহড়া দুটির মূল লক্ষ্য হলো দুটি নৌবাহিনীর মধ্যে আন্তঃব্যবস্থা উন্নয়ন এবং যৌথ ব্যবস্থা সঞ্চালনের ফলে একে অপরের সেরা অনুশীলন থেকে শেখার মাধ্যমে পারস্পরিক সহযোগিতায় উৎসাহিত করা৷ এই মহড়া সামুদ্রিক নিরাপত্তা প্রচারে উভয় দেশের ভাগকৃত স্বার্থ এবং প্রতিশ্রুতিকে তুলে ধরে৷

 
Accessibility | Copyright | Disclaimer | Hyperlinking | Privacy | Terms and Conditions | Feedback | E-paper | Citizen Service
 
© aajkeronlinekagaj, Agartala 799 001, Tripura, INDIA.