Facebook Google Plus Twiter YouTube
   
প্রধানমন্ত্রী পদে ফের একবার শপথ নিলেন নরেন্দ্র মোদী, মন্ত্রিসভায় এলেন অমিত শাহ, বাদ পরলেন সুষমা স্বরাজ, মানেকা গান্ধী, সুরেশ প্রভু
By Our Correspondent, 30/05/2019, New Delhi
 

২৬মে ২০১৪'র পর ৩০ মে ২০১৯। বৃহস্পতিবার দ্বিতীয়বারের মতো প্রধানমন্ত্রী পদে শপথ নিলেন নরেন্দ্র দামোদর দাস মোদী। তার সাথে শপথ নিয়েছেন মন্ত্রিসভার আরো ৫৭ জন সদস্য।
ঘড়ির কাঁটায় সন্ধে সাতটা বেজে তিন মিনিট। দ্বিতীয় বারের জন্য প্রধানমন্ত্রী পদে শপথ নেওয়া শুরু করতেই রাষ্ট্রপতি ভবন প্রাঙ্গণ জুড়ে রব উঠল ‘জয় শ্রীরাম’, ‘মোদী-মোদী-মোদী’, ‘হর হর মোদী’।
এবারের নির্বাচনে দু’হাত তুলে মোদীকে ভোট দিয়েছেন দেশের জনতা। সেই শক্তির ছাপও পড়ল মন্ত্রিসভায়। অসুস্থতার কারণে অরুণ জেটলি মন্ত্রী হতে রাজি হলেন না। বদলে এলেন মোদীরই সেনাপতি অমিত শাহ। সুষমা স্বরাজও মন্ত্রী হলেন না। চমক হিসেবে পূর্ণমন্ত্রী হয়ে এলেন প্রাক্তন বিদেশসচিব এস জয়শঙ্কর।

শিবসেনা, অকালির মতো শরিকরা থাকলেও মোট ৫৮ জনের মন্ত্রিসভায় শামিল হল না নীতীশ কুমারের দল জেডিইউ। একজন মন্ত্রী দিতে চাইলেও জেডিইউ রাজি হয়নি মন্ত্রিসভায় যেতে।  যদিও নীতীশ বলছেন, এর জন্য বিজেপির সঙ্গে সম্পর্কে কোনও ছেদ পড়বে না। মন্ত্রিসভায় নেই এডিএমকে, আপনা দলও ।
অমিত শাহ মন্ত্রী হবেন, এমন ইঙ্গিত ছিলই। বিজেপির অন্দরের গুঞ্জন, আপাতত রাজনাথ সিংহ সরকারে দু’নম্বর থাকলেও অচিরেই তাঁকে টপকে যাবেন শাহ। তবে মন্ত্রী হওয়ার কারণে শাহকে শীঘ্রই বিজেপি সভাপতির পদ ছাড়তে হবে। দল সূত্রে ইঙ্গিত, জগৎপ্রকাশ নাড্ডার মতো কাউকে সভাপতি করা হবে।

সুষমা স্বরাজ শারীরিক কারণে ভোটে লড়েননি। তা সত্ত্বেও তাঁকে রাজ্যসভায় এনে মন্ত্রী করার সম্ভাবনার কথা বলছিলেন অনেকে। আজ রাষ্ট্রপতি ভবনে শপথ অনুষ্ঠানে সুষমা দর্শক আসনে উপস্থিত ছিলেন কিন্তু তাঁকে সেখানে দেখেই অনেকে বিস্মিত হন। তবে মোদী-শাহের পরে উপস্থিত জনতার থেকে আজ যিনি সব চেয়ে বেশি সাড়া পেয়েছেন, তিনি স্মৃতি ইরানি। কাকে কী মন্ত্রক দেওয়া হল, তা ঘোষণার পরেই স্পষ্ট হবে কে কতটা গুরুত্ব পেলেন।
বিজেপি সূত্রে বলা হচ্ছে, জাতপাতের অঙ্ক এবং আঞ্চলিক ভারসাম্যের কথা মাথায় রেখেই মন্ত্রিত্ব বণ্টন করা হয়েছে। পাশাপাশি, জনগণের মধ্যে যথেষ্ট প্রভাব রয়েছে, এমন সাংসদদেরই বেছেছেন মোদী-শাহ। আর সেই সূত্রেই মেনকা গাঁধী, সুরেশ প্রভু, জয়ন্ত সিন্‌হা, রাজ্যবর্ধন সিংহ রাঠৌর, বিজয় গয়ালের মতো অনেক চেনা মুখই বাদ পড়েছেন বলে মনে করা হচ্ছে।

তবে বিজেপি বলছে, মন্ত্রিসভা সম্প্রসারণের এখনও অনেক সুযোগ আছে। মোট ৮১ জনকে মন্ত্রী করার সুযোগ থাকলেও শপথ নিয়েছেন ৫৮ জন। ফলে ২৩টি জায়গা এখনও খালি রয়েছে। প্রয়োজন বুঝে সময়মতো সেগুলি পূরণ করা হবে বলে মনে করা হচ্ছে।

 

 
Accessibility | Copyright | Disclaimer | Hyperlinking | Privacy | Terms and Conditions | Feedback | E-paper | Citizen Service
 
© aajkeronlinekagaj, Agartala 799 001, Tripura, INDIA.