Facebook Google Plus Twiter YouTube
   
প্রতিরক্ষা তহবিলের অধীনে 'প্রধানমন্ত্রী স্কলারশিপ স্কীমে ' মঞ্জুরির ক্ষেত্রে বড় পরিবর্তন, বৃত্তির হার বৃদ্ধি, পুলিশ কর্মীদের প্রকল্পে অন্তর্ভুক্ত করার সিদ্ধান্ত
Burue Report, 31/05/2019, New Delhi

ভারতের নিরাপত্তা ও জাতীয় সুরক্ষার সাথে যুক্ত নিরাপত্তারক্ষীদের বিষয়টি প্রথমেই গুরুত্ব পেল প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির মন্ত্রিসভার প্রথম বৈঠকে। বৈঠকে জাতীয় প্রতিরক্ষা তহবিলের অধীনে বৃত্তি প্রকল্প "প্রধানমন্ত্রী স্কলারশিপ স্কিম'- পরিবর্তন আনা হয়েছে। মন্ত্রিসভার বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী এদিন এই প্রকল্পে অনেকগুলি পরিবর্তন অনুমোদন করেছেন। এগুলি হলো-

(১) স্কলারশিপ-এর হার বৃদ্ধি। ছেলেদের ক্ষেত্রে প্রতি মাসে ২০০০ টাকা থেকে বাড়িয়ে স্কলারশিপ করা হয়েছে ২৫০০ টাকা ও মেয়েদের ক্ষেত্রে প্রতি মাসে ২২৫০ টাকা থেকে বাড়িয়ে করা হয়েছে ৩০০০ টাকা। 

(২) এই স্কলারশিপ পুলিশ কর্মকর্তাদের ক্ষেত্রেও কার্যকর করা হয়েছে যারা সীমান্ত সন্ত্রাস কিংবা নকশাল হামলার শিকার হয়ে শহিদ হয়েছেন কিংবা হবেন। রাজ্য পুলিশ কর্মকর্তাদের ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ নতুন বৃত্তি কোটা নির্দিষ্ট হবে বছরে ৫০০টি। এ বিষয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে নোডাল মন্ত্রক করা হয়েছে।

বলাবাহুল্য যে, স্বেচ্ছাসেবকদের কাছ থেকে আদায়কৃত অর্থ ও অন্যান্য দান বিলি এবং তা ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য ১৯৬২ সালে ন্যাশনাল ডিফেন্স ফান্ড (এনডিএফ) প্রতিষ্টা করা হয়েছিল। বর্তমানে এই তহবিলটি সশস্ত্র বাহিনী, আধা সামরিক বাহিনী ও রেলওয়ে সুরক্ষা বাহিনীর সদস্যদের কল্যাণে এবং তাদের নির্ভরশীলদের জন্য ব্যবহার করা হচ্ছে। প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে একটি কার্যনির্বাহী কমিটি দ্বারা এই তহবিল পরিচালিত হয় যার সদস্য হিসাবে রয়েছেন প্রতিরক্ষা, অর্থ ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী ।

সশস্ত্র বাহিনী,  আধা সামরিক বাহিনী ও রেলওয়ের মৃত / প্রাক্তন কর্মীদের বিধবা ও তত্ত্বাবধানে থাকা সদস্যদের কারিগরি ও স্নাতকোত্তর শিক্ষায় উৎসাহিত করার জন্য জাতীয় প্রতিরক্ষা তহবিলের অধীনে প্রধানমন্ত্রীর বৃত্তি প্রকল্প (পিএমএসএস)টি বাস্তবায়িত হচ্ছে। যে সমস্ত বৃত্তিমূলক শিক্ষা খাতে এই স্কলারশিপ দেয়া হয়ে থাকে সেগুলি হলো মেডিক্যাল, ডেন্টাল, পশুচিকিৎসা, প্রকৌশল, এমবিএ, এমসিএ এবং যোগ্য এআইসিটিই / ইউজিসি অনুমোদনের সাথে অন্যান্য সমমানের প্রযুক্তিগত পেশায় শিক্ষার ক্ষেত্রে।

পিএমএসএর অধীনে প্রতি বছর নতুন বৃত্তি দেওয়া হয় প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় নিয়ন্ত্রিত সশস্ত্র বাহিনীর অন্তর্গত ৫৫০০ জনকে, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় অন্তর্গত ২০০০ জন আধা সামরিক বাহিনীর সদস্যের পরিবারের সদস্যদের এবং রেল মন্ত্রকের অন্তর্গত ১৫০ জন পরিবারের সদস্যদের।

জাতীয় প্রতিরক্ষা তহবিলের ওয়েবসাইট ndf.gov.in এর মাধ্যমে এই অনলাইন স্বেচ্ছাদান গ্রহণ করা হয়।

বৈঠকে পুলিশ কর্মকর্তাদের স্মরণীয় অবদান সম্পর্কে দীর্ঘ বক্তব্য রাখেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, প্রখর গ্রীষ্ম, চরম শীত বা ভারী বৃষ্টির মধ্যেও আমাদের পুলিশ কর্মীরা কঠোর পরিশ্রমের সাথে তাদের কর্তব্য পালন করে যাচ্ছেন। এমনকি প্রধান উৎসবের সময়ও আমাদের পুলিশ কর্মীরা দায়িত্ব পালন করে এবং বাকি দেশ উৎসব  উদযাপন করে।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, একটা জাতি হিসাবে এটা আমাদের কর্তব্য, কেবল তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করা নয় বরং পুলিশ কর্মীদের ও তাদের পরিবারের কল্যাণ বৃদ্ধির জন্যও কাজ করে যাওয়া। এই মনোভাব থেকেই যে প্রধানমন্ত্রী এমন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছেন তা এদিন স্পষ্ট করে দেন। এই বৃত্তি পুলিশ পরিবারের তরুণদের অধ্যয়ন এবং বিভিন্ন ক্ষেত্রে তাদের উৎকৃষ্ট করে তুলতে সক্ষম হবে। এটি অনেক উজ্জ্বল তরুণ মনকে ক্ষমতায়ন করে তোলার ক্ষেত্রে প্রভাব বিস্তারে সক্ষম হবে।

প্রসঙ্গত এখানে উল্লেখ্য যে, প্রধানমন্ত্রীর প্রথম মেয়াদে একটি জাতীয় পুলিশ স্মৃতিসৌধ নির্মিত হয়েছিল এবং তা দেশবাসীর উদ্দেশ্যে উৎসর্গ করা হয়েছিল। এই স্মৃতিস্তম্ভটি আমাদের পুলিশ বাহিনীর সাহস ও আত্মত্যাগের সাক্ষ্য হিসাবে দাঁড়িয়ে রয়েছে এবং কোটি কোটি ভারতীয়কে তা অনুপ্রাণিত করে যাবে।

 
Accessibility | Copyright | Disclaimer | Hyperlinking | Privacy | Terms and Conditions | Feedback | E-paper | Citizen Service
 
© aajkeronlinekagaj, Agartala 799 001, Tripura, INDIA.