Facebook Google Plus Twiter YouTube
   
আর ফেরা হলো না চন্দ্রশেখর ত্রিপুরার
By Our Correspondent, 25/09/2019, Gandachara

আর ফেরা হলো না চন্দ্রশেখর ত্রিপুরার। ঘটনাটি গন্ডাছড়া থানাধীন নারায়নপুর এডিসি ভেলিজের চকিদারপসড়া। চন্দ্রশেখর ত্রিপুরা২৩ বৎসর পিতা ধর্মজয় এিপুরা। চন্দ্রশেখরের সংসারে দুই শিশু সন্তান নিয়ে চারজন পরিবারের। চন্দ্রশেখর ছিলেন বিকলাঙ্গ সরকার থেকে মাসে বিকলাঙ্গ হিসাবে 1 হাজার টাকা ভাতা পেতেন। এই টাকা দিয়ে সংসারে নুন আনতে পান্তা ভাতের যোগাড় হতো না। তাই অন্ধ হয়েও অভাবের সাথে লড়াই করে প্রতিদিন জঙ্গল থেকে বাঁশ করুল লতা পাতা সংগ্রহ করে বাজারে বিক্রি করে যা পেতেন তা দিয়ে কোনরকম তাদের সংসার চলত। সেদিন রবিবার তিন পুতলা শামুক।নিয়ে কচু চিনেন নাই আজও আসেন গন্ডাছড়া বাজারে বিক্রি করার জন্য। বিধাতার নির্মম পরিহাস চন্দ্রশেখর বাড়িতে ফেরা হলো না রাত আটটা শামুক বিক্রি করে বাড়িতে ফেরার সময় গন্ডাছড়া ছড়া পেরিয়ে যেতে হয় বাড়িতে। সামান্য বৃষ্টি হওয়ায় সজল একটু বেড়ে যায় অন্ধ বিকলাঙ্গ চন্দ্রশেখর বুঝতে পারিনি যে ছড়াতে জল বেরিয়ে আছে। সরাতে নামার পর কিছুক্ষণ যাবার পর হঠাৎ সে জলের মধ্যে পড়ে যায়। মা ছিলেন তার সাথে। ছেলের দেরি হওয়ায় মা আগেই বাড়িতে চলে যান।

কিছুক্ষণ পরে জানতে পারেন যে ছেলে এখনো বাড়িতে ফিরে আসেনি। রাত দশটা অপেক্ষা করার পর মা পাড়া-প্রতিবেশী কে ডেকে জিজ্ঞাসা করেন যে চন্দ্রশেখর কে কে তারা রাস্তায় দেখেছি কিনা। না বলাতে পাড়ার প্রতিবেশীদের নিয়ে খুজাখুজি করার পর কোথাও পেলেন না ছেলেকে দিশাহারা হয়ে প্রতিবেশীদের নিয়ে রাতে গন্ডাছড়া থানায় নিখোঁজ ডায়েরি করা হয় থানার আশ্বাস দেন যে রাত হয়েছে সোমবার সকাল বেলা অধিদপ্তরকে নিয়ে তারা গন্ডাছড়া ছড়ার জলেতে পলাশী চালাবেন। কিন্তু দেখা যায় যে সোম মঙ্গল দুইদিন আদপ্তের এর কোনো হেলদোল নেই অবশেষে চন্দ্রশেখর আত্মীয়-স্বজন আজ বুধবার গন্ডা ছড়ায় ছড়ায় তল্লাশি করতে শুরু করে। গন্ডাছড়া সরার উপর ব্রিজ সামনে এসেই তারা দেখতে পান যে ছড়ার জন্য আটকে আছে এক ভাসমান দেহ। সঙ্গে সঙ্গে ছোটাছুটি করে ভাসমান দেহের সামনে গিয়ে দেখতে পান যে চন্দ্রশেখর এর দেহ নিস্তেজ হয়ে আছে। পুলিশ আসার আগেই জল থেকে দেহকে তুলে ছড়ার পান নিয়ে আসেন। খবর পেয়ে পুলিশ প্রায় আধা ঘন্টা পরে মরদেহের সামনে গিয়ে উপস্থিত হন এই ছিল রক্তের ভূমিকা।
 

 
Accessibility | Copyright | Disclaimer | Hyperlinking | Privacy | Terms and Conditions | Feedback | E-paper | Citizen Service
 
© aajkeronlinekagaj, Agartala 799 001, Tripura, INDIA.