Facebook Google Plus Twiter YouTube
   
আমেরিকার বিভিন্ন শীর্ষ কোম্পানীর সিইও ও সিনিয়র এক্সিকিউটিভদের সাথে প্রধানমন্ত্রীর বৈঠক
Burue Report, 27/09/2019, New Delhi

কুড়িটি ক্ষেত্রের আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন ৪২ টি সংস্থার কর্মকর্তাদের নিয়ে নিউ ইয়র্কে বৈঠক করলেন প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদি৷ এই গোলটেবিল বৈঠকে অনুষ্ঠিত কোম্পানিগুলির মোট সম্পদের পরিমাণ হল ১৬.৪ ট্রিলিয়ন মার্কিন ডলার৷ ভারতে তাদের মোট সম্পদ রয়েছে ৫০ বিলিয়ন মার্কিন ডলার৷


বৈঠকে যারা উপস্থিত ছিলেন তারা হলেন, আইবিএমের চেয়ারম্যান, প্রেসিডেন্ট এবং সিইও গিনি রমেটি, ওয়ালমার্ট এর প্রেসিডেন্ট এবং সিইও ডগলাস ম্যাকমিলান, কোকাকোলার চেয়ারম্যান এবং সিইও জোমস কোয়েন্সি, লকহিড মার্টিন এর সিইও মেরিলিন হিউসন, জেপি মরগানের চেয়ারম্যান এবং সি ই জেমি ডিমন, আমেরিকান টাওয়ার করপরেশনের সিইও  এবং ইন্ডিয়া- ইউএস সিইও ফোরামের কো চেয়ার জেমস টি টেসলেট৷  এছাড়া অন্যান্যদের মধ্যে ছিলেন অ্যাপেল , গুগল, ম্যারিয়ট, ভিসা, মাস্টার কার্ড, ৩ এম, ওয়ার বার্গ পিংকাস, এইকম রেইথিয়ন, ব্যাঙ্ক অফ আমেরিকা, পেপসির  সিনিয়ার এক্সিকিউটিভরা৷


ডিপি আইটি এবং ইনভেস্ট ইন্ডিয়া একটি মতবিনিময় অনুষ্ঠানের আয়োজন করে৷ যেখানে অংশগ্রহণ করেন কেন্দ্রীয় শিল্প বাণিজ্য মন্ত্রী পীযূষ গোয়েল এবং প্রমোশন অফ ইন্ডাস্ট্রি এন্ড ইন্টার্নাল ট্রেড এবং বিদেশমন্ত্রকের বরিষ্ঠ আধিকারিকরা৷
বিনিয়োগের ক্ষেত্রে সংস্কারমূলক যে সমস্ত পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে তার জন্য অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণকারীরা ভারতের এই পদক্ষেপের ভূয়সী  প্রশংসা করেছেন৷ ভারতে ব্যবসার ক্ষেত্রে সরলীকরণ এবং বিনিয়োগের ব্যবস্থাকে অনুকূল করার জন্য বিনিয়োগকারীরা প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানিয়েছেন৷ বিনিয়োগকারীরা আশ্বস্ত করেছেন, ভারতের অগ্রগতির ক্ষেত্রে তারা সর্বদা প্রতিশ্রুতিবদ্ধ রয়েছেন৷ গোলটেবিল বৈঠকে উপস্থিত সিইওরা ভারত সম্পর্কে তাদের সুনির্দিষ্ট পরিকল্পনার রূপরেখা তুলে ধরেছেন৷ একই সাথে স্কিল ডেভেলাপমেন্ট, ডিজিটাল ইন্ডিয়া, মেক ইন ইন্ডিয়া, ইনক্লুসিভ গ্রোথ, গ্রিন এনার্জি, এবং ফাইন্যান্সিয়াল ইনক্লুশন এর ক্ষেত্রে ভারতের উদ্যোগ সম্পর্কে বিভিন্ন সুপারিশও তুলে ধরেছেন৷


সিইও দের বিভিন্ন মন্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে প্রধানমন্ত্রী বর্তমান রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা, সরকারের নীতি, উন্নয়নমুখী এবং প্রগতি মুখী প্রকল্পগুলির উপর গুরুত্ব আরোপ করেন৷ পর্যটন, প্লাস্টিক পুনর্ব্যবহার,  বর্জ্য ব্যবস্থাপনা  এবং ক্ষুদ্র ও মাঝারি ব্যবসা যা বিশেষ করে কৃষি ও কৃষকের জন্য সহায়ক হয় তা উন্নত করার উপর পুনরায় জোর দেন প্রধানমন্ত্রী৷ তিনি এই সমস্ত কোম্পানি সমূহকে অন্যান্য দেশের মতো স্টার্টআপ ইন্ডিয়ার সুযোগ গ্রহণ করার জন্য আহ্বান রাখেন, যাতে শুধুমাত্র ভারত নয় গোটা বিশ্বের জন্য পুষ্টি এবং বর্জ্য ব্যবস্থাপনার মত সমস্যাসংকুল বিষয়ে সমাধান সম্ভবপর হয়ে ওঠে৷

 
Accessibility | Copyright | Disclaimer | Hyperlinking | Privacy | Terms and Conditions | Feedback | E-paper | Citizen Service
 
© aajkeronlinekagaj, Agartala 799 001, Tripura, INDIA.