Facebook Google Plus Twiter YouTube
   
মায়ানমারে স্টেট কাউন্সেলর আং সান সুকি’র সাথে বৈঠক প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর
By Our Correspondent, 04/11/2019, ব্যাঙ্কক

এসিয়ান-ভারত সামিটে ৩ নভেম্বর ২০১৯ মায়ানমারের স্টেট কাউন্সেলর আং সান সুকি’র সাথে বৈঠক করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী৷ ২০১৭ সালের সেপ্টেম্বর মাসে মায়ানমারে অনুষ্ঠিত তাঁর প্রথম বৈঠক এবং জানুয়ারি ২০১৮তে ভারতে অনুষ্ঠিত আসিয়ান-ভারতের স্মরণীয় বৈঠকের কথা স্মরণ করে উভয় নেতৃত্বে দুই দেশের মধ্যেকার দ্বি-পাক্ষিক সম্পর্কের উন্নয়নে সন্তোষ প্রকাশ করেন৷

ভারতের “পূবে তাকাও” এবং “পড়শী প্রথম” নীতির অগ্রাধিকারের উপর গুরুত্ব প্রদানের কথা বৈঠকে উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী৷ এই লক্ষ্যে  তিনি সড়ক, বন্দর এবং অন্যান্য পরিকাঠামো নির্মাণ সহ মায়ানমারের মাধ্যমে দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার সাথে  যোগাযোগের উন্নতির জন্য ভারতের ধারাবাহিক প্রচেষ্টার কথাও তুলে ধরেন৷ মায়ানমারের পুলিশ, সেনা ও সরকারি কর্মচারীদের তথা ছাত্রছাত্রী ও নাগরিকদের দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য ভারত দৃঢ় সমর্থন জুগিয়ে যাবে বলেও জানান৷ উভয় নেতৃত্বে একমত হন- দুই দেশের জনগণের মধ্যে প্রত্যক্ষ সংযোগ পারস্পরিক সম্পর্কের প্রসারে সহায়ক হবে এবং এই কারণে দুই দেশের মধ্যে বিমান যোগাযোগ এবং মায়ানমারে ২০১৯ সালের নভেম্বরের শেষদিকে ইয়াঙ্গুনে আয়োজিত সিএলএমভি (কলোম্বিয়া, লাউস, মায়ানমার ও ভিয়েতনাম) বাণিজ্য সম্মেলন সহ বাণিজ্য সম্প্রসারণের ক্ষেত্রে ক্রমবর্ধমান আগ্রহ বৃদ্ধির বিষয়টিকে স্বাগত জানিয়েছেন তাঁরা৷

ভারতের সাথে অংশীদারিত্বের জন্য তাঁর সরকার যে গুরুত্ব আরোপ করছে, এবং মায়ানমারে গণতন্তে্র সম্প্রসারণ ও উন্নয়নের জন্য ভারতের ধারাবাহিক ও মজবুত সহায়তার প্রশংসা করেছেন স্টেট কাউন্সেলর ড. সু চি৷ উভয় নেতৃত্বে একমত হয়েছে সম্পর্কের সম্প্রসারণের জন্য স্থায়ী ও শান্তিপূর্ণ সীমান্ত একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ৷ ভারত-মায়ানমার সীমান্ত এলাকায় যাতে জঙ্গিরা কোনো স্থান না পায় তারজন্য মায়ানমারের সহযোগিতা নিশ্চিত করার উপর জোর দেন প্রধানমন্ত্রী৷

রাখাইনের পরিস্থিতি প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রী প্রথম ভারতীয় প্রকল্প হিসাবে ২৫০টি বাড়ি গত জুলাইয়ে মায়ানমার সরকারের হাতে অর্পণ করার ছাড়াও এই দেশের জন্য আরও আর্থ-সামাজিক প্রকল্প গ্রহণের জন্য ভারতের প্রস্তুতির কথা ব্যক্ত করেছেন৷ ভারত, বাংলাদেশ এবং মায়ানমার তিন দেশের স্বার্থে  রাখাইন থেকে বাস্তুচ্যুত লোকদের তাদের বাড়িতে দ্রুত,  নিরাপদ ও স্থায়ী প্রত্যাবর্তনের জন্য প্রধানমন্ত্রী জোর দিয়েছেন৷ উভয় নেতৃত্বে আগামী বছরেও দুই দেশের মধ্যে সমস্ত স্তরে সম্পর্ক দৃঢ় রাখতে এবং সহযোগিতার জন্য উচ্চস্থরীয় এই আলোচনা জারি রাখার পক্ষে একমত হয়েছেন৷

 
Accessibility | Copyright | Disclaimer | Hyperlinking | Privacy | Terms and Conditions | Feedback | E-paper | Citizen Service
 
© aajkeronlinekagaj, Agartala 799 001, Tripura, INDIA.