Facebook Google Plus Twiter YouTube
   
তিন বছরে গ্রামীণ স্বাস্থ্যপরিকাঠামোর উন্নয়নে ত্রিপুরা পেয়েছে ১৯২.৬৭ কোটি
By Our Correspondent, 29/11/2019, Agartala

গত তিন বছরে কেন্দ্রীয় সরকারের কাছ থেকে ১৯২.৬৭ কোটি টাকারও বেশি অর্থ পেয়েছে৷ চলতি অর্থ বছরেও আরও অনেকগুলি গ্রামীণ প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্র ও উপ স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলির উন্নয়ন করা হবে৷ লোকসভায় এই তথ্য জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ দপ্তরের মন্ত্রী অশ্বিনী কুমার চৌবে৷ একটি বিশদ তথ্য দিতে গিয়ে তিনি জানিয়েছেন, গ্রামীণ এলাকায় হাসপাতালের উন্নয়ন আয়ুষ্মান ভারত - হেলথ এন্ড ওয়েলনেস সেন্টারের (এবি-এইচডাব্লুসিসি) আওতায় সারা দেশে ১.৫ লক্ষ স্বাস্থ্য উপকেন্দ্র এবং প্রাথমিক স্বাস্থ্য কেন্দ্রকে ২০২২ সালের ডিসেম্বরের মধ্যে হেলথ এন্ড ওয়েলনেস সেন্টারে রূপান্তর করা হবে ৷

এর উদ্দেশ্য হলো প্রতিরোধমূলক স্বাস্থ্যসেবা এবং স্বাস্থ্য প্রচার অন্তর্ভুক্ত করা। তিনি জানিয়েছেন, ২০১৮-২০১৯ অর্থবছরে হবে ১৫,০০০টি, ২০১৯-২০২০ সালে ২৫,০০০টি, ২০২০-২১ সালে ৩০,০০০টি, ২০২১-২২ সালে ৪০,০০০টি ও ৩১ ডিসেম্বর ২০২২ পর্যন্ত ৪০,০০০টি হাসপাতালকে হেলথ এন্ড ওয়েলনেস সেন্টারে রূপান্তর করা হবে৷

উল্লেখ্য, গ্রামাঞ্চল সহ রাজ্যের সর্বত্র স্বাস্থ্য পরিষেবার দায়িত্ব হলো রাজ্য সরকারের৷ ফলে সমস্ত সরকারী হাসপাতালের আধুনিকায়নের প্রাথমিক দায়িত্বও হ'ল সংশ্লিষ্ট রাজ্য সরকারের৷ তবে জাতীয় স্বাস্থ্য মিশন (এনএইচএম) এর মাধ্যমে কেন্দ্রীয় সরকার রাজ্যগুলিকে প্রযুক্তিগত এবং আর্থিক সহায়তা প্রদান করে  থাকে৷

জাতীয় স্বাস্থ্য মিশনের অধীনে গত তিন বছরে ২০১৭-২০১৮,  ২০১৮-২০১৯ ও ২০১৯-২০২০ সালে নতুন বিল্ডিং নির্মাণ, হাসপাতালের উন্নয়ন ও হেলথ এন্ড ওয়েলনেস সেন্টারের জন্য ত্রিপুরাকে যথাক্রমে ৫৬৭৩.৬০ লক্ষ, ৪০৪১.৬০ লক্ষ ও ৯৫৫২.০১ লক্ষ টাকা প্রদান করেছে৷ অর্থাৎ তিন বছরে এই খাতে ত্রিপুরা পেয়েছে ১৯২ কোটি ৬৭ লক্ষ টাকারও বেশি অর্থ৷ এবছর আরও কয়েকটি হেলথ এন্ড ওয়েলনেস সেন্টারকে উন্নীত করা হবে৷

 
Accessibility | Copyright | Disclaimer | Hyperlinking | Privacy | Terms and Conditions | Feedback | E-paper | Citizen Service
 
© aajkeronlinekagaj, Agartala 799 001, Tripura, INDIA.