Facebook Google Plus Twiter YouTube
   
দপ্তরের গাফিলতিতে বিশাল আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়তে হচ্ছে রেলকে, পরিকাঠামোগত দুর্বলতার কারণে বিনা টিকিটে ভ্ৰমণ করতে হচ্ছে রাজ্যের যাত্রীদের
By Our Correspondent, 09/01/2020, Agartala
 

রাজ্যে সাব্রুম পর্যন্ত রেলপথ সম্প্রসারিত হওয়ার ফলে যাত্রীসাধারণ তার সুফল ভোগ করতে শুরু করেছেন ৷ সাব্রুম স্টেশনে উত্তরোত্তর যাত্রী ভিড় বাড়ছে ৷ ডিজেল মাল্টিপল ইউনিটের সৌজন্যে খুব অল্প সময়ের মধ্যে আগরতলা-সাব্রুম বা আগরতলা-ধর্মনগর আসাযাওয়া করা যাচ্ছে ৷ কিন্তু এই ব্যবস্থা শুরু হতে না হতেই গত কিছুদিন যাবত ডেমো পরিষেবা মুখ থুবড়ে পড়েছে ৷ মাঝে কদিন এই রুটে সাফারি ট্রেন চলাচল করে ৷ আজ সকালে আবার সাব্রুম স্টেশনে   ডেমো রেকগুলো টেনে আনল বড় ইঞ্জিন ৷ ফলে ইঞ্জিন ঘুরিয়ে ট্রেন আগরতলায় রওনা হল সকাল আটটার জায়গায় সাড়ে আটটায় ৷
         এদিকে আজ বেশ কদিন যাবত সাব্রুম স্টেশনের টিকিট কাউন্টার থেকে টিকিট বিক্রি হচ্ছেনা ৷ 'লিংক ডাউন ক্লোজড' বোর্ড টাঙানো রয়েছে কাউন্টারের জানালায় ৷ ফলে যাত্রীসাধারণ বিনাটিকিটে ট্রেনে চাপতে হচ্ছে ৷  ত্রিপুরার যাত্রীসাধারণ বিনা টিকিটে ট্রেনে চাপার অভ্যাস রপ্ত করেননি ৷ ফলে একটা অস্বস্তিকর অবস্থার মধ্য দিয়ে তাঁদের ট্রেনভ্রমন করতে হচ্ছে ৷ অবশ্য স্টেশন মাস্টারের সঙ্গে যোগাযোগ করলে জানিয়ে দিচ্ছেন টিকিট না থাকলেও কোনো অসুবিধা হবেনা ৷ উনি আগরতলায় জানিয়ে রেখেছেন ৷
          অন্যদিকে আগরতলা স্টেশন থেকেও দক্ষিণের যাত্রীরা অনিচ্ছাসত্বেও বিনা টিকিটে  ট্রেনে চাপতে বাধ্য হচ্ছেন ৷ আগরতলা স্টেশনে অপ্রতুল টিকিট কাউন্টারের ফলে কাউন্টারগুলোতে থাকে প্রচন্ড ভিড় ৷ লাইনে দাঁড়িয়ে টিকিট সংগ্রহ করতে করতে ট্রেন ছেড়ে দেয় ৷ তাছাড়া সিনিয়র সিটিজেনদের জন্যে আলাদা কোনো কাউনটার নেই ৷ ফলে তাঁরা পড়েন সবচেয়ে বেশি সমস্যায় ৷ তার উপর একা থাকলে জিনিসপত্রের দিকে লক্ষ্য রাখবেন না দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে টিকিট নেবেন ৷ শেষ সময় পর্যন্ত কাউন্টারের দোরগোড়ায়ও পৌঁছতে না পেরে পড়িমরি করে ওভারব্রিজেরওপর দিয়ে দৌড়াচ্ছেন  ট্রেন ধরার জন্যে ৷ টিকিট ছাড়াই ৷ ধরা পড়লে কী হবে সে চিন্তা না করে ৷ আবার বাইরের যাত্রীকে যদি অল্প সময়ের ব্যবধানে আগরতলা স্টেশনে নেমে দক্ষিণের ট্রেন ধরতে হয় তাহলে তো টিকিট কাটা কোনোমতেই সম্ভব নয় ৷ বস্তুত রেলদপ্তরের অব্যবস্থার কারণে প্রতিদিন রাজ্যের বহুমানুষকে বাধ্য হয়ে বিনাটিকিটে রেলভ্রমন করতে হচ্ছে আর দপ্তরকে ক্ষতির বোঝা বইতে হচ্ছে ৷ এছাড়া বিবেচনাহীনভাবে ভোর সোয়া পাঁচটায় আগরতলা থেকে সাব্রুম ট্রেন সার্ভিস রাখা হয়েছে ৷ ফলে এত ভোরে  যাত্রীরা আসতে না পারায় সেটাতে প্যাসেঞ্জার কম হচ্ছে ৷ অথচ এই ট্রেনটা আধঘন্টা পরে ছাড়লেই বিশাল সংখ্যক যাত্রী সুযোগ পাবে ৷
           রাজ্যের প্রতিটি রেলস্টেশনে এত যাত্রী হওয়া সত্বেও রেলদপ্তরের খামখেয়ালির কারণে যে আর্থিক ক্ষতি হচ্ছে ভারতীয় রেলের তার দায় কার উপর বর্তাবে? ইতোমধ্যে আগরতলা-সাব্রুম রেলপথে আয় না হওয়ার অজুহাতে রাতের একটি ট্রেন উঠিয়ে নেওয়া হয়েছে ৷ আশংকা হচ্ছে, রেলদপ্তরের একশ্রেণির কর্মী এধরনের ছংবং করে ক্ষতির অজুহাত দেখিয়ে এই রুটে আরো ট্রেন না কমিয়ে দেয় এবং আগামী দিনে সাব্রুম থেকে দূর পাল্লার ট্রেনগুলো ছাড়ার সম্ভাবনাও না বাতিল করে দেয় ৷ সাব্রুমবাসীর স্বপ্নের রেল নিয়ে কোনো গভীর চক্রান্ত হচ্ছে নাতো.

 

 
Accessibility | Copyright | Disclaimer | Hyperlinking | Privacy | Terms and Conditions | Feedback | E-paper | Citizen Service
 
© aajkeronlinekagaj, Agartala 799 001, Tripura, INDIA.