Facebook Google Plus Twiter YouTube
   
জম্মুতে "ব্যাম্বু- এ ওয়ান্ডার গ্রাস"শীর্ষক কর্মশালা সম্পন্ন উত্তর-পূর্বাঞ্চলের ধাঁচে জম্মু-কাশ্মীরে বাঁশ ভিত্তিক শিল্প বিকাশের জন্য বিভিন্ন সুপারিশ
PIB, 13/01/2020, New Delhi

আজ জম্মুতে  বাঁশকে কেন্দ্র করে জম্মু ও কাশ্মীরের স্থায়ী উন্নয়নের সুযোগ তৈরির করার লক্ষ্যে দু'দিন ব্যাপী একটি কর্মশালা তথা প্রদর্শনীর শেষ হয়েছে। কর্মশালা  তথ প্রদর্শনীটির আয়োজন  করেছে যৌথভাবে  উত্তর পূর্বাঞ্চল উন্নয়ন মন্ত্রক, উত্তর পূর্বাঞ্চল পরিষদ, ভারত সরকার,  জম্মু-কাশ্মীর সরকার, অসমের গুয়াহাটিস্থিত ক্যান ও বাঁশ প্রযুক্তি কেন্দ্র (সিবিটিসি) এবং জম্মু-কাশ্মীরের সামাজিক বনায়ন মন্ত্রক ৷

 ভেলিডেক্টরি সেশন চলাকালে ভারত সরকারের উত্তর পূর্বাঞ্চল পরিষদের পরিকল্পনা উপদেষ্টা শ্রী সিএইচ. খারশিং উত্তর-পূর্বাঞ্চলের ধাঁচে  জম্মু ও কাশ্মীরে বাঁশ শিল্পের বিকাশের জন্য বিভিন্ন প্রস্তাব পেশ করেন। প্রস্তাবগুলির মধ্যে   রয়েছে,  টিস্যু কালচার রিসার্চের মাধ্যমে জম্মু ও কাশ্মীরে উপযুক্ত প্রজাতির বাঁশের মজুত সনাক্তকরণ  এবং বৃদ্ধি করা ৷ একই সঙ্গে  নার্সারি স্থাপন ও এন্ডলিং বিতরণের কাজ  আরম্ভ করা,  পঞ্চায়েতরাজ সংস্থাসমূহের সহযোগিতায়  জম্মু ও কাশ্মীরের বাঁশ উৎপাদনকারী অঞ্চল জুড়ে বাঁশের সাথে যুক্ত কৃষক ও বিভিন্ন সংস্থার গঠন ও প্রসার ৷ অসমের সিবিটিসিতে জম্মু ও কাশ্মীরের কৃষক /শিল্পীএবং উদ্যোগপতিদের সক্ষমতা বৃদ্ধি, কমন ফ্যাসিলিটি সেন্টার স্থাপন এবং বাঁশ প্রযুক্তি উদ্যান স্থাপনের জন্য জম্মু-কাশ্মীর সরকারের সাথে সিবিটিসির প্রযুক্তিগত সহযোগিতা, ইকো-ট্যুরিজম, গ্রামীণ আবাসন এবং গ্রামীণ অঞ্চলে কমিউনিটি বিল্ডিংয়ের জন্য নির্মাণ সামগ্রী হিসাবে বাঁশ ব্যবহারের প্রচার, এবং বাঁশজাতীয় পণ্য ও হস্তশিল্পের প্রসার ও বিপণনের জন্য  জম্মু-কাশ্মীরের কারিগরদের সহায়তা করার জন্যএনইএইচএইচডিসি এবং জম্ম-কাশ্মীর সরকারের মধ্যে অংশীদারিত্ব গড়ে তোলা৷

টেকনিক্যাল সেশন চলাকালে উত্তর পূর্ব থেকে আগত তরুণ বক্তা শ্রী ধন চৌধুরী বলেছেন, ভারতে প্রায়  ৬ হাজার কোটি টাকার ধূপকাঠির  বাজার রয়েছে এবং বার্ষিক  ১০  শতাংশ  হারে বৃদ্ধি পাচ্ছে,  যা গ্রামীণ অঞ্চলের জীবন যাত্রার উন্নয়নের বিশাল সুযোগ রয়েছে । ভারতে প্রায় ১২ হাজার ধূপকাঠি উৎপাদন ইউনিট রয়েছে এবং ৩৩ লক্ষেরও বেশি লোক প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে এই শিল্পের সাথে যুক্ত রয়েছে। তিনি আরও বলেন, জম্মু ও কাশ্মীরে ধূপকাঠি  তৈরির ভাল সুযোগ রয়েছে, কারণ জম্মুর বিভিন্ন অঞ্চলে বাঁশের ভাল মজুত রয়েছে যা জনগণের জন্য ভাল কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি করতে পারে।

'বেত ও বাঁশ হস্তশিল্প' সংক্রান্ত কারিগরি অধিবেশনে বক্তব্য রাখতে গিয়ে ভারত সরকারের ডোনার মন্ত্রকের নর্থ ইস্ট হ্যান্ডলুম অ্যান্ড হ্যান্ডিক্রাফটস ডেভেলপমেন্ট কর্পোরেশন এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক শ্রী ধীরাজ ঠাকুরিয়া বলেন, উত্তর পূর্বের হস্ততাঁত ও হস্তকারু শিল্পের বিকাশের জন্য ডোনার মন্ত্রক প্রযুক্তি ব্যবহারকারী বান্ধব আইটি এবং আইসিএআর এর জন্য সাইন্স এন্ড টেকনোলজি মিশন ইন নর্থ ইস্ট রিজিওন ( এসটিআইএনইআর) নামে  একটি কর্মসূচি চালু করেছে ৷

উত্তর পূর্বাঞ্চলের উন্নয়নে ডোনার কর্তৃক গৃহীত বিভিন্ন প্রশংসনীয় পদক্ষেপের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, জীবনযাত্রার উন্নয়ন ও আয় বৃদ্ধির জন্য ডোনার মন্ত্রক  নর্থ ইস্টার্ন রিজিওন লাইভলিউড প্রজেক্ট  (এনইআরএলপি) এবং নর্থ ইস্ট কমিউনিটি রিসোর্স অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট প্রোগ্রাম (এনইআরসিওএমপি) এর মতো বিভিন্ন এজেন্সি শুরু করেছে ৷

ইন্ডিয়ান ফেডারেশন অব গ্রীন এনার্জির মহানির্দেশক তথা ভাস্কর ফাউন্ডেশনের সিইও সঞ্জয় গান্ডু বলেন, বাঁশ শিল্পে বিশেষত ইকো ট্যুরিজম, হস্তশিল্প, আগরবাতির স্টিক, ক্লাস্টার, টিস্যু কালচার ল্যাব ইত্যাদিতে জম্মু ও কাশ্মীরের বিশাল সুযোগ রয়েছে৷

আগরতলার মুতা ইন্ডাস্ট্রিজের ভাইস প্রেসিডেন্ট  শ্রী রবিন বোস " ব্যাম্বু উড ম্যাকিং'  সম্পর্কিত আরও একটি একটি টেকনিক্যাল সেশনে প্রশ্ন করেন  কেন আমরা আমাদের অর্থনীতির আরও দ্রুত বৃদ্ধিক জন্য বাঁশকে ব্যবহার করতে পারি না।  বাঁশভিত্তিক কারখানার উপর গুরুত্ব আরোপের জন্য তিনি প্রধানন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে অভিনন্দন জানান৷ তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী চান এই শিল্প গড়ে তোলার মাধ্যমে পরিবেশ বান্ধব প্রকৃতি এবং জীবিকা নির্বাহের উন্নয়ন হোক৷

গতকাল দুদিন-ব্যাপী কর্মশালা তথা প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন ডোনারমন্ত্রী ডঃজিতেন্দ্র সিং৷ এই কর্মশালায় উপস্থিত ছিলেন জম্মু ও কাশ্মীরের লেঃ গভর্নর৷

'দুদিনের  কর্মশালা  তথা প্রদর্শনীতে বাঁশ কাঠের তৈরী পণ্যাদি, উত্তর পূর্ব অঞ্চলের বেত এবং বাঁশের হস্তশিল্পের অভিজ্ঞতা, ধূপকাঠি  তৈরির সম্ভাব্য ও ব্যবহার সম্পর্কিত বিশেষ উল্লেখ সহ বাঁশ কাঠি শিল্পের স্থিতি ও ব্যাপ্তি সম্পর্কিত বিভিন্ন টেকনিক্যাল সেশন অনুষ্ঠিত হয়৷

উল্লেখিত বিষয়গুলির উপর অংশগ্রহণকারীরা গুরুত্ব-পূর্ণ আলোচনা করেন ৷ তারা জম্মু ও কাশ্মীরের কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল বাঁশ আবাদ সম্পর্কিত প্রাসঙ্গিক বিষয় এবং এর ব্যাপ্তি সম্পর্কিত প্রাসঙ্গিক বিষয়গুলির বিশদ বিবরণ তুলে ধরেছেন।

কর্মশালার অংশ হিসাবে কর্মীদের কর্মশালা-সহ-প্রদর্শনীতে অন্তর্ভুক্ত বিভিন্ন বিষয়ের আরও ভাল ধারণা অর্জনের সুযোগ দেওয়ার জন্য প্রতি মডিউলে বেশ কয়েকটি মত বিনিময়অনুষ্ঠিত হয়৷ শিল্পীরা জম্মু ও কাশ্মীর কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে বাঁশ চাষ প্রসারের জন্য একটি লাইভ প্রোগ্রামও পরিবেশন করেন। প্রাসঙ্গিকভাবে বাঁশ চাষ প্রসারের লক্ষ্যে কর্মশালা-তথা-প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হয় যা জম্মু ও কাশ্মীর কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের উন্নয়নআরও স্থায়ী ও বৃহত্তর সুযোগ নিশ্চিত করবে।

 
Accessibility | Copyright | Disclaimer | Hyperlinking | Privacy | Terms and Conditions | Feedback | E-paper | Citizen Service
 
© aajkeronlinekagaj, Agartala 799 001, Tripura, INDIA.