Facebook Google Plus Twiter YouTube
   
সকালে কয়েক মিনিটের ঝড়ে লন্ডভন্ড হলো রাজধানীর একাংশ
By Our Correspondent, 18/06/2020, Agartala

বৃহস্পতিবার সকালে কয়েক মিনিটের ঝড়ে লন্ডভন্ড হলো রাজধানীর একাংশ সহ রাজ্যের নির্দিষ্ট কিছু এলাকা। ঝড়ের গতিবেগ এবং ঝড়ের দিশা রাত পর্যন্ত অনুমান করতে পারেননি রাজ্যের আবহাওয়াবিদরা।তবে ক্ষতির পরিমাণ এবং ধরন দেখে মনে হয়েছে ১৫০-২০০ কিলোমিটার বেগে শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় বয়ে গেছে এদিন। ক্ষণিকের এই ঝড় একটি নির্দিষ্ট দিশা হয়ে ধেয়ে গেছে। ঝড়ের গতি মুখে থাকা বাড়িঘর, সহ গাছপালা, বিদ্যুতের খুঁটি রীতিমতো লন্ডভন্ড হয়ে যায়। রাজধানীর বলদাখাল, চন্দ্রপুর, জামতলা, কাশিপুর, সহ খয়েরপুর এর কিছু এলাকাতেই ঝড়ের তাণ্ডব বেশি ছিল এদিন। ঝড়ের তাণ্ডবে বলদাখাল এলাকাতে এক সাংবাদিকের বাড়িসহ ৩টি বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়। স্থানীয় শিমুল দাস এবং সুজিত দেবনাথ এর ঘরের টিনের চাল উড়ে যায়। শক্তিশালী ঝড়ের ধাক্কায় বাড়ির পাকা দেওয়াল ভেঙ্গে পরে উড়ে যাই লোহার স্ট্রাকচারে বসানো টিনের চাল। চন্দ্রপুরে ভূপতিত হয় বিশাল গাছ এবং বিদ্যুতের খুঁটি। জামতলা এলাকাতে একইভাবে ঝড়ে ভেঙে পড়ে বাড়ি ঘরের একাংশ। ক্ষতিগ্রস্ত এক পরিবার বাড়িঘর ছেড়ে অন্যত্র শিবিরে আশ্রয় নিয়েছেন বলে জানা গেছে। তবে ঝড়ে কোন প্রাণহানির খবর নেই। সকালে ঝড়ের খবর পেয়ে দুপুরে এলাকাটা ছুটে যান পশ্চিম ত্রিপুরার জেলা সাংসদ প্রতিমা ভৌমিক, খয়েরপুর এর বিধায়ক রতন চক্রবর্তী সহ সদর এবং জিরানিয়া মহাকুমার প্রশাসনিক আধিকারিকরা।

ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্তদের কিছু আর্থিক সাহায্য করা হয়। এতে আশ্চর্যের বিষয় হলো এ দিনের ঝড়ের কোন তথ্য পাওয়া যায়নি আগরতলা বিমানবন্দর আবহাওয়া দপ্তর কিংবা কৃষিবিজ্ঞান পর্ষদের আবহাওয়াবিদদের থেকে। বিমানবন্দর আবহাওয়া দপ্তরের একাংশ আধিকারিক জানান এদিন আবহাওয়া দপ্তরে ঝড়ের তথ্য ই নেই। বিমানবন্দর আবহাওয়া দপ্তরের রাডারে ঝড়ের কোন লক্ষণ ধরা পড়েনি বলে আবহাওয়াবিদরা জানিয়েছেন। আবহাওয়াবিদদের বিবরণ এদিন শুধুমাত্র বর্ষাকালীন বৃষ্টির এবং ঘন্টায় ২০-২৫ কিলোমিটার বেগে বয়ে যাওয়া হাওয়ার রেকর্ড রয়েছে দপ্তরের তথ্য। আবহাওয়াবিদদের বিবরণ চন্দ্রপুর এ ঝড়ে ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার বিবরণ জানতে তেরে তারাও আশ্চর্য হয়েছেন।এই ঝড় কোথায় সৃষ্টি হয়েছিল এবং কত কিলোমিটার বেগে কোন দিকে ধাবিত হয়েছে তা নিয়ে রীতিমতো রহস্য তৈরি হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে বিশ্লেষণ শুরু করছেন আবহাওয়াবিদরা।অন্যদিকে বিমানবন্দর এর রিপোর্ট অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় ১০২মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে।বৃহস্পতিবার দিনে সর্বোচ্চ এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা রেকর্ড হয়েছে ২৮.৬ ডিগ্রী এবং ২৫.৩ ডিগ্রী সেলসিয়াস। আগামী ২৪ ঘণ্টায় ভারী ঝড় বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। তাপমাত্রা ৩০ ডিগ্রি এবং ২৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে ওঠানামা করতে পারে বলে আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে।

 
Accessibility | Copyright | Disclaimer | Hyperlinking | Privacy | Terms and Conditions | Feedback | E-paper | Citizen Service
 
© aajkeronlinekagaj, Agartala 799 001, Tripura, INDIA.