Facebook Google Plus Twiter YouTube
   
গরমে ঘামের অস্বস্তি দূর করতে পোশাক পরুন ভেবেচিন্তে
সঙ্গীতা পুরকায়স্থ , 10/06/2017, Agartala

এই গরমে যাদের অফিস বা কলেজে যেতে রোজ বেরোতে হয় তাদের পোশাকের দিকে বিশেষ নজর দেওয়া দরকার। কেননা পোশাক ঘামে ভিজলে দেখতে যেমন খারাপ লাগে, তেমনই ঠান্ডা লেগে যাওয়ারও সম্ভাবনা থাকে। ফলে প্রতি দিন বেরনোর সময় এই দিকগুলো খেয়াল রাখা আবশ্যক।

অনেকের খুব বেশি ঘামার প্রবণতা থাকে।  ফলে সব সময়ই তাদের জামা ঘামে ভিজে ওঠে। পিঠ, বগল, বুক ঘেমে এই ভেজা জামা পরে অফিস যাওয়া খুবই অস্বস্তিকর। তাই যে রঙের পোশাকে ঘামের দাগ স্পষ্ট হয়ে ওঠে সেই সব রং এড়িয়ে চলা দরকার। সাধারণত নেভি ব্লু বা কালোর মতো গাঢ় রঙের পোশাকে ঘামের দাগ বোঝা যায় না। তেমনই আবার সাদা, ধূসর বা নীলের মতো হালকা রঙের পোশাকেও ঘামের দাগ স্পষ্ট হয় না। উজ্জ্বল রঙের পোশাকে ঘামের দাগ প্রকট হয়ে ওঠে, তাই যে কোনও উজ্জ্বল রং গরম কালে বিশেষ করে দিনের বেলা এড়িয়ে চলুন। এক রঙের পোশাকে ঘামের দাগ প্রকট হয়ে ওঠে। তাই  চেক, স্ট্রাইপ বা কোনও প্রিন্ট জামা থাকলে সেটা পড়তে পারেন।
    গরম কালে পুরুষ-মহিলা সকলেই পোশাকের ভিতরে সুতির ভেস্ট বা ইনার পরুন। পোশাকের লেয়ার থাকলে এয়ার পকেট তৈরি হয়। ফলে ঘাম কম হবে। ঘামে ভিজে পোশাক নষ্টও হবে কম। টি-শার্টে ফ্যাব্রিক ব্যবহার করা হয় যা খুব সহজে ঘাম ত্বকের উপরি ভাগে নিয়ে আসে। ফলে ঘাম শরীরে বসে না। গরমে এই ধরনের পোশাক পরতেই পারেন। গরমে বগলের পাশাপাশি হাত, পা-ও ঘামে। তাই এই সময়ে এমন জুতো পরবেন যাতে পা না ঘামে। এমন জুতো পরুন যাতে পায়ে হাওয়া লাগে। পা বন্ধ থাকলে গরমও বেশি লাগবে। মোজা পরলে অবশ্যই সুতির মোজা পরুন। পোশাকের পাশাপাশি নজর দিন উপযুক্ত খাদ্যাভ্যাসে। তবেই সুস্থ থাকতে পারেন এই তীব্র গরমে।

 

 
Accessibility | Copyright | Disclaimer | Hyperlinking | Privacy | Terms and Conditions | Feedback | E-paper | Citizen Service
 
© aajkeronlinekagaj, Agartala 799 001, Tripura, INDIA.