Facebook Google Plus Twiter YouTube
   
নির্বাচন নির্দিষ্ট সময়ে হচ্ছে কি না তা নিয়ে অনিশ্চয়তা বহাল রেখেও প্রস্ততি সেরে রাখতে চাইছে কমিশন
By Our Correspondent, 29/11/2017, Agartala
 

ত্রিপুরাতে বিধানসভার নির্বাচন সময়ের মধ্যেই হবে কি না তা নিয়ে কোনো নিশ্চয়তা মিললো না। তবে সমস্ত প্রস্ততি যে সম্পূর্ণ করে রাখতে চাইছে কমিশন তা বুঝিয়ে দিয়েছে নির্বাচন কমিশনের পূর্ণাঙ্গ টিম।তবে ভোটার তালিকায় বিজেপি অসন্তোষের কথা কমিশনকে জানালেও তাকে বেশি আমল দিতে চাইছেন না তারা। যদিও রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা নিয়ে নির্বাচন কমিশন যে অসন্তুষ্ট তা প্রায় খোলাখুলিই জানিয়ে দিয়েছেন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার। ভোটের আগে আইন শৃঙ্খলার উন্নতি করতে এদিন মুখ্যসচিব ও পুলিশের মহানির্দেশককে নির্দেশ দিয়ে গেছেন বলে জানিয়েছেন তিনি। রাজ্য অতিথিশালায় সাংবাদিক সম্মেলন বক্তব্য রাখছিলেন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার এ কে জ্যোতি। 

প্রসঙ্গত এখানে উল্লেখ্য, আগামী ১৮ মার্চ শেষ হচ্ছে ত্রিপুরা বিধানসভার মেয়াদ। তার আগে বিধানসভা নির্বাচনের প্রস্তুতি খতিয়ে দেখতে গতকাল মঙ্গলবার রাজ্যে আসে নির্বাচন কমিশনের পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চ। এখানে এসে প্রথমেই রাজনৈতিক দলগুলির সাথে আলোচনায় বসে নির্বাচন কমিশনের প্রতিনিধিরা। এরপর বৈঠক হয় রাজ্যের মুখ্যসচিব সঞ্জীব রঞ্জন ও পুলিশের মহানির্দেশক এ কে শুক্লার সাথে। পরবর্তী সময়ে রাতেই বৈঠক হয় রাজ্যের আট জেলার জেলাশাসক ও পুলিশ সুপার সহ বিভিন্ন স্থরের আধিকারিকদের সাথে। 

বিজেপি ভোটার তালিকার ব্যাপক সংশোধনী দাবি করেছে। তাদের বক্তব্য ছিল, ভোটার তালিকায় অন্তত ১২ শতাংশ জাল ভোটার রয়েছে। দলের বক্তব্য ছিল, নির্ভুল ভোটার তালিকা প্রনয়ণ করার দায়িত্ব রয়েছে নির্বাচন কমিশনের। 

এদিন মুখ্য নির্বাচন কমিশনারও সেকথা মেনে নিয়েছেন। শ্রী জ্যোতি বলেন, ভোটার তালিকা যাতে নির্ভুল হয় সেই দায়িত্ব রয়েছে কমিশণের। তবে তালিকা নির্ভুল করার কথা বললেও ত্রিপুরার জন্য নিবিড় সংশোধনী চেয়ে বিজেপির পক্ষ থেকে যে দাবি জানানো হয়েছে তা প্রকারান্তরে খারিজ করে দিয়েছেন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার। তিনি বলেন, বর্তমানে স্পেশাল সামারি রিভিশনের কাজ চলছে। আগামী ৫ জানুয়ারি চূড়ান্ত ভোটার তালিকা প্রকাশিত হবে। তখন যদি দেখা যায় জাল তালিকায় জাল ভোটার রয়েছে তখনও ৭ নং ফর্ম পূরণ করে ওই নাম বাদ দেয়া যাবে। কিন্তু ত্রিপুরার জন্য বিশেষ সংশোধনী কিংবা জিপিএস সিস্টেমকে ব্যবহার করে ভোটার তালিকা সংশোধন করার কোনো সম্ভাবনা নেই বলেই বুঝিয়ে দিয়েছেন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার। 

ভোটার তালিকায় ব্যাপক কারচুপির বিষয়টি নির্বাচন কমিশন আড়াল করতে চাইলেও রাজ্যের আইন শৃঙ্খলা যে মোটেও সন্তোষজনক নয় তা এদিন স্পষ্টতঃই বুঝিয়ে দিয়েছেন কমিশণের প্রতিনিধিরা। মুখ্য নির্বাচন কমিশনার বলেছেন, দুইজন সাংবাদিক হত্যার ঘটনা যথেষ্ট উদ্বেগের। এমনটা হওয়া উচিত না। বিষয়টা উর্ধতন মহলের দেখা দরকার।  আইন শৃঙ্খলা নিয়ে গতকাল মুখ্যসচিব, পুলিশের মহানির্দেশক সহ স্বরাষ্ট্র সচিব, সমস্ত জেলার এসপি সহ উর্ধতন আধিকারিকের যে বৈঠক হয়েছে সেখানেও আইন শৃঙ্খলার উন্নতি করতে বলা হয়েছে।মুখ্য নির্বাচন কমিশনার জানিয়েছেন, মুখ্যসচিব ও মহানির্দেশক আশ্বাস দিয়েছেন আইন শৃঙ্খলার উন্নতি করবেন। 

নির্বাচন নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে হবে কি না সে ব্যাপারে কোনো স্পষ্ট উত্তর মিলেনি কমিশনের তরফে। শুধু বলা হয়েছে, বিধানসভা ভোটের জন্য প্রস্ততি খতিয়ে দেখতেই তারা এখানে এসেছেন। তাই ভোট যথাসময়ে হবে কি না তা সাংবাদিকদের উপযুক্ত সময়েই জানিয়ে দেওয়া হবে। বলাবাহুল্য যে, নির্বাচন কমিশন অপেক্ষা করছে দুটি বিষয়ের উপর। এক হলো - ৫ জানুয়ারি যে ভোটার তালিকা প্রকাশিত হবে তা কতটা নির্ভুল সেটা দেখা। যদি এরপরও যদি তালিকা নিয়ে  কোনো রাজনৈতিক দলের অভিযোগ থাকে তবে নির্বাচনের দিন পিছিয়ে যেতে পারে। দুই এই সময়ের মধ্যে রাজ্যের আইন শৃঙ্খলার কতটা উন্নতি হচ্ছে সেটা দেখবে কমিশণ। যদি এই সময়েও এই ধরনের পরিস্থিতি চলতে থাকে তবে সেই ক্ষেত্রেই ভোট পিছিয়ে যেতে পারে। ফলে ভোটের নির্ঘন্ট প্রকাশের দায়িত্ব কার্যত রাজ্য প্রশাসনের উপরেই ছেড়ে দিয়ে গেছেন নির্বাচন কমিশন পূর্ণাঙ্গ বেঞ্চ। 

যদিও ভোট সময়মত হবে ধরেই কমিশন নিজেদের প্রস্ততি সেরে নিতে চাইছে। তাই রাজ্যের ৬০টি বিধানসভা আসনের ৩১৭০টি বুথেই ইভিএম মেশিনের পাশাপাশি ভিভিপেট মেশিন থাকবে বলে জানিয়েছেন মুখ্য নির্বাচন কমিশনার। তিনি জানিয়েছেন, নির্বাচন কমিশন জেনারেল ও পুলিশ অবজারবার পাঠাবে স্থানীয় প্রশাসনকে উপদেশ দিতে। সীমান্ত এলাকায় ও সংবেদনশীল বুথগুলিতে ওয়েবকাস্ট, সিসিটিভি, ভিডিওগ্রাফির ব্যবস্থা থাকবে। প্রত্যেকটি বিধানসভা কেন্দ্রে অন্তত তিনজন করে ফ্লাইয়িং স্কোয়াড এর সদস্য থাকবেন। উল্লেখ্য বুধবার দুপুরেই রাজ্যত্যাগ করে গেছেন সাত সদস্যের কমিশনের প্রতিনিধিরা।

 
Accessibility | Copyright | Disclaimer | Hyperlinking | Privacy | Terms and Conditions | Feedback | E-paper | Citizen Service
 
© aajkeronlinekagaj, Agartala 799 001, Tripura, INDIA.