Facebook Google Plus Twiter YouTube
   
এক বছরে উত্তর পূর্বে রেল'র জন্য বরাদ্দ সাড়ে সাত হাজার কোটি টাকা
By Our Correspondent, 02/04/2017, agartala

আগরতলা : পৃথক রেল বাজেটে নয়, উত্তর পূর্বাঞ্চল লাভবান হলো সাধারণ বাজেটেই। শনিবার থেকে শুরু হতে চলেছে নতুন অর্থ বছর. আর ২০১৭-১৮ অর্থ বাজেটে কেন্দ্রীয় সরকার এই অঞ্চলের রেল প্রকল্পের জন্যে  সাত হাজার কোটি টাকা বরাদ্দ রেখেছে। যা গত বাজেটের তুলনায় দেড় হাজার কোটি টাকা বেশি। আগরতলায় সাংবাদিক সম্মেলন করে শুক্রবার এ কথা জানিয়েছেন রেলের সেফটি কমিশনার শৈলেশ কুমার পাঠক।

 

নবনির্মিত উদয়পুর-গর্জি ৯.২৬ কিলোমিটার রেল লাইন পরীক্ষা করে দেখতে এদিন আগরতলায় এসেছেন রেলের সেফটি কমিশনার। নতুন তৈরি করা এই লাইনে রেল চালিয়ে সন্তষ্টি প্রকাশ করেছেন তিনি। শ্রী পাঠক জানিয়েছেন, এ দিন ১২০ কিলোমিটার বেগে ট্রেন চালিয়ে লাইন পরীক্ষা করা হয়েছে। কোথাও কোনো ত্রুটি ধরা পড়েনি। ফলে যেকোনো দিন আগরতলা থেকে গর্জি পর্যন্ত ট্রেন চালানো সম্ভব। আগামিকাল দিল্ল্লি ফিরেই তিনি রেল বোর্ডের কাছে রিপোর্ট জমা করে দিবেন। এরপর বোর্ডের সম্মতিক্রমে যেকোনো সময়ে ট্রেন চালু করা যেতে পারে।

 

প্রসঙ্গত এখানে উল্লেখ্য, আগরতলা থেকে দক্ষিন ত্রিপুরার সীমান্ত শহর সাবরুম পর্যন্ত ১১৪ কিলোমিটার রেল লাইনের কাজ চলছে অত্যন্ত দ্রূত গতিতে। এই সাবরুম থেকে বাংলাদেশের বাণিজ্যিক রাজধানী চট্টগ্রামের দূরত্ব মাত্র ৮০ কিলোমিটারের। এ ছাড়া কক্সবাজার সমুদ্র বন্দরের দূরত্ব একশো কিলোমিটারের মতো. ফলে সাবরুমের সাথে রেল যোগাযোগ স্থাপিত হয়ে গেলে ত্রিপুরা সহ গোটা উত্তর পূর্বাঞ্চলের ভৌগলিক প্রতিবন্ধকতা দূর হয়ে যাবে। আর এই লক্ষে কেন্দ্রীয় সরকার এই রেল লাইনের কাজটি অত্যন্ত দ্রুত সম্পন্ন করতে চাইছে। সম্প্রতি রেল রাষ্ট্রমন্ত্রী রাজেন গোহাঁইও আগরতলায় এসে এই রেলের কাজের অগ্রগতি নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীর সাথে মিটিং করে গেছেন।

 

আগরতলা-সাবরুম ১১৪ কিলোমিটার রেল লাইনের জন্য কেন্দ্রীয় সরকার ১১৫০ কোটি টাকার বরাদ্দ দিয়েছে। ১১৪ কিলোমিটার লাইনের মধ্যে আগরতলা থেকে গোমতী জেলা সদর উদয়পুর পর্যন্ত মোট ৪৪ কিলোমিটারের রেল লাইনের কাজ আগেই শেষ হয়ে গিয়েছিলো। এবার উদয়পুর থেকে গর্জি পর্যন্ত ৯ কিলোমিটারের কাজ সম্পন্ন হয়ে গেছে। পরবর্তী ধাপে গর্জি থেকে দক্ষিণ ত্রিপুরার জেলা সদর বিলোনিয়া পর্যন্ত ২৫ কিলোমিটার লাইনের কাজ শুরু হবে. আগামী মার্চ মাসের মধ্যে এই কাজ শেষ করার লক্ষমাত্রা ধার্য করা হয়েছে। সাবরুম পর্যন্ত রেল পৌঁছুবে ২০১৯ সালের মার্চ মাসের মধ্যে।

 

রেলের সেফটি কমিশনার জানিয়েছেন, ত্রিপুরাতে রেলের এক কিলোমিটার সিঙ্গল লাইনের জন্যে খরচ হচ্ছে ৭ কোটি টাকা।

 
Accessibility | Copyright | Disclaimer | Hyperlinking | Privacy | Terms and Conditions | Feedback | E-paper | Citizen Service
 
© aajkeronlinekagaj, Agartala 799 001, Tripura, INDIA.