Facebook Google Plus Twiter YouTube
   
রেফার কমাতে চারটি জেলা হাসপাতালে সম্পূর্ণরূপে চালু হচ্ছে বিশেষজ্ঞ পরিষেবা
By Our Correspondent, 10/07/2018, Agartala
 

তবে যে সমস্ত মহকুমা হাসপাতালে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক নেই সেই সকল হাসপাতালে সপ্তাহে দুইদিন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক যাবেন৷ একথা জানিয়েছেন স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ দপ্তরের মন্ত্রী সুদীপ রায় বর্মণ৷ তিনি জানান, জিবি, আইজিএম কিংবা আম্বেদকর হাসপাতালে রাজ্যের বিভিন্ন জেলা থেকে রোগী আসে৷ বিশেষ করে জিবিতে অত্যাধিক চাপ বাড়ছে৷ নির্দিষ্ট কয়েকটি রোগ নিয়েই বেশি পরিমাণে রোগীরা আগরতলায় আসছেন৷ এই পরিস্থিতিতে অত্যাধিক চাপ বাড়ছে প্রধান রেফারেল হাসপাতালগুলিতে৷ আর এভাবে ভাল চিকিৎসা পরিষেবাও পাচ্ছেন না৷ উপরন্তু দূর দূরান্ত থেকে এখানে চিকিৎসা করাতে এসে নানারকমের অসুবিধার সম্মুখিন হতে হচ্ছে৷

রোগীদের নানাবিধ অসুবিধার কথা চিন্তা করে রাজ্য সরকার প্রাথমিকভাবে জেলা পর্যায়ের চারটি হাসপাতালকে সম্পূর্ণরূপে চালু করতে চাইছে৷ রাজ্যের আটটি জেলার মধ্যে খোয়াই এবং সিপাহীজলা জেলার একটা অংশের রোগীরা নিয়মিতভাবে আগরতলার হাসপাতালগুলিতে এসে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসা পরিষেবা সহজেই নিতে পারছেন৷ ফলে এই দুই জেলাকে আপাতত বাদ দিয়ে গোমতী জেলা হাসাপাতালটিকে শক্তিশালী করা হবে, যাতে গোমতী ও সিপাহীজলা জেলার একটা অংশের মানুষ এখানে চিকিৎসা পরিষেবা নিতে পারেন৷ এছাড়া, দক্ষিণ জেলার মধ্যে শান্তিরবাজার জেলা হাসপাতাল, ধলাইয়ের কুলাই ও উনকোটি জেলা হাসপাতালকে শক্তিশালী করা হচ্ছে৷

স্বাস্থ্যমন্ত্রী সুদীপ রায় বর্মণের মতে, আপাততঃ এই চারটি হাসপাতালে চারটি বিভাগের বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক থাকবেন৷ এই বিভাগগুলি হলো- জেনারেল মেডিসিন, শিশুরোগ বিশেষজ্ঞ, মহিলা ও প্রসূতি রোগ বিশেষজ্ঞ এবং অস্থিরোগ বিশেষজ্ঞ৷ সেই সাথে থাকবেন অ্যানাস্থেশিষ্ট৷ প্রত্যেকটি বিভাগের দুইজন করে চিকিৎসক থাকবেন৷ তা হলে পাশ্ববর্তী জেলার রোগীরাও এই হাসপাতালগুলিতে এসে যথাযথ চিকিৎসা পরিষেবা নিতে পারবেন৷ আর তা হলে রেফারেল হাসপাতালগুলিতে রোগীদের চাপ অনেকটাই কমবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী সুদীপ রায় বর্মণ৷ এছাড়া, যে সমস্ত মহকুমা হাসপাতালে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক নেই সেই হাসপাতালের অধীনে থাকা রোগীরা যাতে এই পরিষেবা পেতে পারেন তারজন্য পাশ্ববর্তী জেলা কিংবা মহকুমা হাসপাতাল থেকে সংশ্লিষ্ট বিভাগের চিকিৎসককে সপ্তাহে দুইদিন সেখানে গিয়ে রোগী দেখবেন৷

তিনি আরও জানিয়েছেন, রোগীদের শারিরীক অবস্থা বিবেচনা করে জিবিতে আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিতে চলেছে দপ্তর৷ মেডিসিন বিভাগে যে সমস্ত রোগী ভর্তি হবেন তাদের দুটি ভাগে চিকিৎসা করা হবে৷ একটি ভাগ থাকবে অতি গুরুতর ও অন্যটি থাকবে গুরুতর বিভাগ৷ যে রোগীদের প্রতি অধিক মাত্রায় সতর্কতা অবলম্বন করা জরুরি তাদের অতি গুরুতর বিভাগে ভর্তি করা হবে৷ বাকিদের রাখা হবে গুরুতর বিভাগে৷

 
Accessibility | Copyright | Disclaimer | Hyperlinking | Privacy | Terms and Conditions | Feedback | E-paper | Citizen Service
 
© aajkeronlinekagaj, Agartala 799 001, Tripura, INDIA.