Facebook Google Plus Twiter YouTube
   
বিজেপি-আইপিএফটি জোট নিয়ে উত্তপ্ত রাজ্য রাজনীতি, টিকিয়ে রাখতে তৎপর আইপিএফটি, ভাঙতে সক্রিয় বিজেপি, নিচুতলায় শরিকি সংঘর্ষ চলছেই
By Our Correspondent, 12/09/2018, Agartala
 

বিজেপি-আইপিএফটি জোট ভাঙছে না বলে বুধবার দুপুরে এক সাংবাদিক সম্মেলনের মধ্য দিয়ে আইপিএফটির মুখপাত্র মঙ্গল দেববর্মা জানিয়েছেন। কিন্তু বড় শরিক বিজেপি আর এই দায় সামনে টেনে নিয়ে যেতে চাইছে না। রাতে মুখ্যমন্ত্রীর আবাসে উপস্থিত জনজাতি বিধায়করা জোট এখুনি ভেঙে দেয়ার পক্ষে মত রেখেছেন। যদিও সিদ্ধান্ত এখনো হয়নি।

আইপিএফটি নেতা মঙ্গল দেববর্মা বলেন, বিজেপির সাথে জোট ভাঙবে না। তবে পঞ্চায়েতের উপনির্বাচনের মনোনয়নের সময়সীমা বৃদ্ধি করা প্রয়োজন। পাশাপাশি আলোচনার প্রস্তাবও রাখা হয়েছে।
বুধবার বিকালে বিজেপি-আইপিএফটি জোট নিয়ে মন্ত্রী এনসি দেববর্মার বাড়িতে জরুরি বৈঠক বসে। এই বৈঠকে বিগত কয়েক দিনে রাজ্যে আইনশৃঙ্খলার চরম অবনতি সম্পর্কেও আলোচনা হয়েছে। সংঘর্ষের পর মনে করা হচ্ছিল জোট ভেঙে যেতেই চলেছে।  কিন্তু অনেক আলোচনার পর নেতারা জানিয়ে দেন বিজেপি-আইপিএফটি জোট ভাঙছে না।

এই পরিস্থিতিতে রাতে মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেবের আবাসে বিজেপি কোর কমিটির বৈঠক হয়। ওই বৈঠকে জনজাতি বিধায়করা জোট ভেঙে দেয়ার পক্ষে জোর সওয়াল করেন। তাদের বক্তব্য এতে পাহাড়ে বিজেপির সংগঠন মজবুত করা যাবে। এই নিয়ে অবশ্য গভীর রাত অবধি কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। মুখ্যমন্ত্রী অবশ্য আরো কিছুটা সময় দিতে চান।


এদিকে আইপিএফটির নিচুতলার কর্মীরা নেতাদের নির্দেশ শুনতে চাইছেন না। ফলে নেতারা শান্তির আহ্বান রাখলেও নিচুতলায় বুধবারও শরিক দ্বন্দ্বে উত্তপ্ত ছিল খোয়াই। মঙ্গলবার থেকে বিজেপি এবং আইপিএফটির মধ্যে টানা সংঘাতের ফলে খোয়াই-কমলপুর সড়ক বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। খোয়াইয়ে অন্তত দেড় শতাধিক যাত্রীবাহী গাড়ি আটকে ছিল।

মঙ্গলবার রাত থেকে এই পরিস্থিতি চলছে। বুধবার সকাল থেকে পরিস্থিতির আরও অবনতি ঘটেছে। অখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদ এবং স্থানীয় ক্লাবের কর্তাব্যক্তিরা যাত্রীদের সাহায্যে এগিয়ে এসেছেন। রাতে জল ও খিচুরি খাওয়ানোর উদ্যোগ নিয়েছেন তাঁরা। সকালবেলা শিশুদের জন্য দুধের ব্যবস্থাও করেছেন বিদ্যার্থী পরিষদের স্থানীয় কর্মকর্তারা।

বুধবার সকাল থেকে খোয়াই-কমলপুর সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে পড়ে। খোয়াইয়ে আটকে পড়া কয়েশো যাত্রীর দুর্ভোগ চরমে উঠেছে। শরিক দ্বন্দ্বে আইপিএফটি সড়ক অবরোধ করেছে কমলপুরের শ্রীরামপুরে।

যদিও এই বিষয়কে কেন্দ্র করে মঙ্গলবার রাতেই শ্রীরামপুরে খন্ডযুদ্ধ হয় পুলিশ বনাম আইপিএফটির মধ্যে। পুলিশ জানিয়েছে, পরিস্থিতি যথেষ্ট উদ্বেগজনক, তবে নিয়ন্ত্রণে। এই অবস্থায় আগরতলা খেকে কমলপুর, কৈলাসহর, ধর্মনাগর-সহ দুরপাল্লার বহু ছোট-বড় যানবাহন মঙ্গলবার বিকেল থেকে খোয়াইয়ে আটকে পড়েছে।

মঙ্গলবার রাতে শিঙিছড়ার একটি কমিউনিটি হল এবং একটি ক্লাবে যাত্রীদের রাত কাটানোর ব্যাবস্থা করে স্থানিয় অখিল ভারতীয় বিদ্যার্থী পরিষদের নেতৃত্ব। কিন্তু বুধবারেও খোয়াই কমলপুর সড়কে যানবাহন চলাচলে প্রশাসনিক সবুজ সংকেত আসেনি।

এই অবস্থায় গতকাল থেকে খোয়াইয়ের শিঙিছড়ায় ঠায় দাঁড়িয়ে শতাধিক ছোট-বড় যাত্রীবাহী যানবাহন। আর এই সমস্যায় যাত্রী সাধারণের দুর্ভোগ চরমে উঠেছে। তবে রাজ্য প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে দ্রুত পরিস্থিতি স্বাভাবিক হবে। প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। অন্যদিকে বক্সনগরে দলীয় কর্মী ও সমর্থকদের মারধরের ঘটনার প্রতিবাদে বুধবার সকাল থেকে টাকারজলা চৌমুহনিতে পথ অবরোধ করে দিয়েছে আইপিএফটি। তাঁদের দাবি, অবিলম্বে দোষীদের শাস্তি দিতে হবে।
অবরোধের ফলে ওই রাস্তায় তীব্র যানজটের সমস্যা দেখা দেয় । রাস্তার উভয়দিকে প্রচুর গাড়ি আটকে ছিল। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে প্রচুর পরিমাণে টিএসআর জওয়ান মোতায়েন করা হয়েছে। পাশাপাশি বিশাল সংখ্যক পুলিশ বাহিনীও মোতায়েন করা হয়েছে এলাকায়।

 
Accessibility | Copyright | Disclaimer | Hyperlinking | Privacy | Terms and Conditions | Feedback | E-paper | Citizen Service
 
© aajkeronlinekagaj, Agartala 799 001, Tripura, INDIA.